ত্রিপুরা পল্লীতে কমিউনিটি ক্লিনিকের যাত্রা শুরু – Ctgnews
ctgnew

ত্রিপুরা পল্লীতে কমিউনিটি ক্লিনিকের যাত্রা শুরু

নিজস্ব প্রতিনিধি :: সীতাকুন্ডের ত্রিপুরা পাড়ায় হামে আক্রান্ত হয়ে ১০ শিশুর মৃত্যু এবং শতাধিক শিশু আক্রান্ত হওয়ার পর সেই ত্রিপুরা পাড়ায় কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

বুধবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে হাফিজ জুট মিল এলাকায় এই কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধন করেন সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী।

এর আগে গত ২৯ জুলাই এক সংবাদ সম্মেলনে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের ঘোষণা দেন সিভিল সার্জন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, ‘১২ হাজার মানুষ সেবা গ্রহণ করার সুযোগ করে দিয়ে উপজেলাটিতে প্রথমবারের মত অনগ্রসর কোন এলাকায় কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করা হলো।  ক্লিনিকটিতে রোগী রেফার্ড করা থেকে শুরু করে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদাণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে একজন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার পোভাইডারসহ দুই জন মাঠকর্মীকে। তারা রক্তচাপ, গর্ভবতী মা ও শিশুদের স্থাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করবেন। একইসাথে ক্লিনিকে সবসময় প্রায় ৩০ রকমের ওষুধ থাকবে যা এলাকার ১২ হাজার মানুষ বিনামূল্যে নিতে পারবেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সোনাইছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন, সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এসএম নুরুল করিম, ৫ নং ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ আজম, নারী ইউপি সদস্য মর্জিনা , যুবলীগ নেতা এনামুল হক চৌধুরী, মজিবুর রহমান, প্রমুখ।

জাতিয় পতাকার রঙের আদলে দেশপ্রেমে ব্রত হয়ে কমিউনিটি ক্লিনিকটি স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের নির্দেশে নির্মাণ করা হয়েছে জানিয়ে সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এসএম নুরুল করিম বলেন,  অঞ্জন রায়, কাজি মেহরুন্নেসা নামে দুই স্বাস্থ্যকর্মী আপাদত চিকিৎসা সেবা প্রদাণ করছেন।

শরুতে ত্রিপুরা পল্লীতে নিহত ১০ শিশুর আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথি নিজেই মল্লিক ত্রিপুরা নামে এক শিশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে ওষুধ প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে সীতাকুণ্ডের ত্রিপুরাপাড়ায় সংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে চার দিনের মাথায় নয় শিশুর মৃত্যু হয়। এ ঘটনার টনক নড়ে প্রশাসনের। সাংবাদিক চিকিৎসকরা দুর্গম ত্রিপুরা পাড়ায় ছুটে যায়। আক্রান্ত শিশুদের হাসপাতালে ভর্তিসহ প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া শুরু করে। প্রায় এক সপ্তাহ পর জানা যায় অজ্ঞাত রোগ নয় মূলত অপুষ্টি বিশেষ করে ভিটামিন ‘এ’ এর অভাব এবং হামের কারণেই শিশুরা আক্রান্ত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সীতাকুন্ড উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে মধ্যম সোনাইছড়ি এলাকায় যুগ যুগ ধরে বসবাস করে আসছে ৫৭টি ত্রিপুরা পরিবার। পাহাড়ে জঙ্গল পরিষ্কার এবং জুম চাষ করে ওই পরিবারগুলো জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। তাদের সাথে স্থানীয় বসতির যোগাযোগও তেমন নেই। চিকিৎসা সেবাসহ সরকারী নানা সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত ওই এলাকার বাসিন্দারা।

সিটিজিনিউজ/এইচএম/এজেড

সর্বশেষ সংবাদ


নোটিশ : “এই মাত্র পাওয়া” খবর আপনার মোবাইলে পেতে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশন থেকে START পাঠিয়ে দিন 4848 নম্বরে ।
ctgnew
প্রধান উপদেষ্টা : আব্দুল গাফফার চৌধুরী
সম্পাদক : সোয়েব উদ্দিন কবির
ঠিকানা : ৯২ মোমিন রোড ,
শাহ আনিস মার্কেট ৫ম তলা, চট্রগ্রাম ।
মোবাইল : ০১৮১৬-৫৫৩৩৬৬
টিএন্ডটি : ০৩১-৬৩৬২০০

Design and Development by : Creative Workshop

52 queries in 0.841 seconds.