দেশ প্রেম থেকেই জেবুন্নাহার মিলির ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’ – Ctgnews
ctgnew

দেশ প্রেম থেকেই জেবুন্নাহার মিলির ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’

সাফি-উল হাকিম:  ফ্যাশন ডিজাইনার জেবুন্নাহার মিলির তৈরি পোশাকের পরতে পরতে পশ্চিমা ধাচকে হার মানানোর চেষ্টা দেখে বিস্মিত ক্রেতারা। তার এই সাধনা দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়েই। যার ফল স্বরুপ  হিসেবে  আজ মার্জিত পোশাক সচেতন তরুণীদের আস্থার জায়গা করে নিয়েছে ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা এবং ব্যবহারকারীদের প্রতিক্রিয়ার ভিত্তিতে তৈরি করা হয়েছে এসব পোশাক।

পবিত্র ঈদুল ভিতর উপলক্ষে সিটিজিনিউজের ‘ঈদ বাজার পরিক্রমা’র প্রথম পর্বে পাঠকদের কাছে তুলে ধরা হল ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’ সম্পর্কে।

‘মার্জিত পোশাক’ কিংবা ‘হালাল পোশাক’ এর বিষয়ে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এই বুটিক হাউসে। আর যার হাত ধরে আজকের এই ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’ তিনি চট্টগ্রামের প্রিয় মুখ ফ্যাশন ডিজাইনার জেবুন্নাহার মিলি।

নগরীর সদরঘাট রোড, কালি বাড়ী মোড় মালাই শো রুমের উপর নিজস্ব জায়গায় খুলেছেন এই ব্যতিক্রমী বুটিক হাউসটি। বুধবার (১৪ জুন) চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী এর শুভ উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ফ্যাশন ডিজাইনার মিলির বড় ভাসুর এস.এম. আয়ুব, মেজো ভাসুর রিয়াজউদ্দিন বাজার বনিক কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক এস.এয়াকুব ও স্বামী এস.এম বশিরউল্লাহ। আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাবেক পৌর কমিশনার আলহাজ্ব আবু বকর, কৃতী আলোকচিত্র শিল্পি মো.ঈসা খান।

ঈদের বাজার জমে উঠেছে বিপণি বিতানগুলোতে। নিজেদের পছন্দের পোশাক কেনায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন অনেকে। বিভিন্ন বাজারে উপচে পড়া ভিড়। কোথাও পা ফেলার জায়গা নেই এমন অবস্থা। তবে কিছুটা ভিন্নতা চোখে পড়ে নগরীর কালিবাড়ি মোড়ের এই ‘ক্রাফট এন্ড ক্লাসি’ বুটিক হাউসে।

মেয়েদের জন্য রয়েছে শাড়ি, থ্রি পিস, টু পিস, সিঙ্গেল কামিজ, ওড়না, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, কুর্তি, গজ কাপড়, বিভিন্ন ধরনের গহনা, ম্যাচিং হাত ব্যাগ, হ্যান্ডি ক্রাফট, জুতা ইত্যাদি।

শিশুদের জন্য রয়েছে পাঞ্জাবি, শার্ট, টি-শার্ট, ফতুয়া, থ্রি পিস, টু পিস, ফ্রক, স্কার্ট, টপস ইত্যাদি। এছাড়া এখানে বিছানার চাদরসহ ঘরের অনেক জিনিসপত্রও পাওয়া যায়।

সকল বয়সী বাচ্চাদের রেগুলার ও এক্সক্লুসিভ ড্রেস মিলবে এখানে। রয়েছে ঘর সাজানোর রকমারী শো-পিস এবং এন্ডিক-পিস। যা অত্যন্ত সূলভ মূলে আপনি পেতে পারেন। বেড সিট, বেবী কথা থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকমের ডিজাইনার ড্রেস, গাওন, ব্রাইডেল গাওন ও বিভিন্ন ডিজাইনের ব্লাউজের অর্ডার দিতে পারেন আপনি। পাশাপাশি প্রিয়জনের ছবি টি-শার্টে সূলভ মূল্যে প্রিন্ট করার ব্যবস্থা রয়েছে।
ফ্যাশন ডিজাইনার মিলির অভিজ্ঞতায় এবারের ঈদ পোশাক নির্বাচনের বিষয়ে জানালেন ভিন্ন কথা। ভারতীয় সিরিয়াল বা সিনেমার প্রভাব। শুধু ভারতীয় কেন, পশ্চিমা বিশ্বের প্রভাব বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে মিডিয়ার মাধ্যমে। এই কারণে দেশীয় পণ্যের প্রতি ক্রেতাদের অনীহা। আর সে বিষয়টি মাথায় রেখেই তার ডিজাইনের পরতে পরতে সেই পশ্চিমা ধাচকেই হার মানানোর চেষ্টা করেছেন।
পশ্চিমা সংস্কৃতিকে দোষারোপ করে মিলি বলেন, ‘আগের বছর থেকে এবার বিকিকিনি খুবই কম। ক্রেতারা আসলেও আবার চলে যাচ্ছেন। শাড়ি, পাঞ্জাবি কিছুটা বিক্রি হলেও ছোটদের কোনো পোশাক বিক্রি হচ্ছে না। মা-বাবা ছোটদের এখন আর দেশীয় পোশাক পরায় না। তারা সন্তানদের যেমন বাংলার বদলে ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়ায়। পোশাকের বেলায়ও এমন। দেশি নয় বিদেশি পোশাক পরায় তারা।’

এক প্রশ্নের জবাবে মিলি বলেন, ‘দেশীয় পণ্য আসলে ভালোবাসা দিয়ে গ্রহণ করার বিষয়। তবে এই অবস্থা থেকে দেশীয় ব্র্যান্ডগুলোর খুব দ্রুত উত্তরণ হবে বলে আশাবাদী তিনি।’

তরুণ এই ফ্যাশন ডিজাইনার বলেন, ‘আমরা দেশীয় থিমে যেসব শাড়ি তৈরি করেছি সেগুলো অন্য কোনো দোকানে পাওয়া যাবে না। এগুলো একান্তই আমাদের। ফলে এগুলো মোটামুটি বিক্রি হচ্ছে। দামও তুলনামূলক কম।

দেশীয় পোশাকের মধ্যে একটা আলাদা আভিজাত্য আছে জানিয়ে মিলি বলেন, ‘আমাদের দোকানে বড়দের কিছু ক্রেতা আছেন যারা হাতের বুটিকের কাজ পছন্দ করেন। কারণ এখানে আভিজাত্য আছে। এটা আসলে সবাই বোঝে না।’ তবে আমার শো রুমটি উদ্বোধনের পর থেকেই ক্রেতাদের ভালো সাড়া পাচ্ছি। নতুনত্ব আছে এবার। দাম কম। সব মিলে আশানুরূপ ফল পাচ্ছি। ঈদের তো আরও ক’দিন বাকি রয়েছে। বাজার আরও জমবে। যারা দেশিয় পোশাকের মান বোঝে না তারা বিদেশি পোশাক কিনবে। এটা সব সময়ই ছিল, থাকবেও। কিন্তু আমরা আশাবাদী, আগামীতে ভালো হবে দেশীয় পণ্যের বাজার।’

বিদেশি পোশাকের কাছে দেশি ব্র্যান্ড ‘ধাক্কা’ খাচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা যে কোয়ালিটি সম্পন্ন পোশাকটি দিই সেটা ক্রেতারা বুঝতে পারলে বিদেশি পোশাকগুলো কিনতো না। ক্রেতারা তো আর জিনিস চেনে না, চেনে চাকচিক্য। তবে অচিরেই তাদের মধ্যে বোধ তৈরি হবে। আমাদের দেশীয় উদ্যোক্তারা আরও ভালো পণ্য ক্রেতাদের উপহার দিবে।’

‘এবারের ট্রেন্ড কী’ এ প্রশ্নের উত্তরে ক্রাফট এন্ড ক্লাসি বুটিক হাউজের কর্ণধার ও ডিজাইনার মিলি বলেন, ‘সেই অর্থে এবারের পোশাকের ট্রেন্ডে খুব একটা পরিবর্তন নেই। ডিজাইনে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। এগুলোই ক্রেতারা পছন্দ করছেন। তবে লং কামিজের একটা আলাদা দাপট মনে হয় তৈরি হয়েছে।’

পাঞ্জাবি, ফতুয়া, শার্ট, টি-শার্ট যাই হোক না কেন সুতি, এন্ডি ও খাদি কাপড়ের তৈরি পোশাকগুলোই বরাবরের মতো জনপ্রিয়তা পেয়েছে এবারও।

——–

এইচএম

সর্বশেষ সংবাদ


নোটিশ : “এই মাত্র পাওয়া” খবর আপনার মোবাইলে পেতে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশন থেকে START পাঠিয়ে দিন 4848 নম্বরে ।
ctgnew
প্রধান উপদেষ্টা : আব্দুল গাফফার চৌধুরী
সম্পাদক : সোয়েব উদ্দিন কবির
ঠিকানা : ৯২ মোমিন রোড ,
শাহ আনিস মার্কেট ৫ম তলা, চট্রগ্রাম ।
মোবাইল : ০১৮১৬-৫৫৩৩৬৬
টিএন্ডটি : ০৩১-৬৩৬২০০

Design and Development by : Creative Workshop

53 queries in 1.178 seconds.