পুঁজি হারিয়ে সর্বশান্ত হওয়ার পথে পরিবহন মালিকেরা – Ctgnews
ctgnew

পুঁজি হারিয়ে সর্বশান্ত হওয়ার পথে পরিবহন মালিকেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : জীবনের মায়া ত্যাগ করে আমরাই জ্বালাও-পোড়াও রাজনৈতিক সহিংসতার মধ্যে ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে গাড়ি চালিয়েছি। কোটি কোটি টাকার সম্পদহানির ভয় না করে মাঠে ছিলাম। সেই আমরা  পরিবহণ ব্যবসায় পুঁজি হারিয়ে এখন সর্বশান্ত হয়ে পড়েছি।

যারা দেশের বৃহত্তম সেবাখাত আমদানী রপ্তানী সহ পণ্য পরিবহন করে দেশ ও জাতির জরুরী প্রয়োজন মিটিয়ে জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। এ অবস্থায়  ওভারলোডিং নিয়ে নতুন অধ্যাদেশ জারীর ফলে বর্তমানে ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছেন তারা।

বৃহস্পতিবার ( ২৫ মে) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এ বিষয়য়ে ৯ দফা দাবীতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে আন্ত:জিলা পরিবহন ট্রাক ও কভার্ডভ্যান মালিক সমিতি । লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন  সমিতির  সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী জাফর আহমদ।

লিখিত বক্তব্যে উঠে আসা ৯ দফা দাবী গুলো হলো, ওভারলোড নিয়ন্ত্রণ করে “পরিবহন শিল্পকে বাঁচান” এটা সময়ের দাবী, তবে জরিমানা প্রথার মাধ্যমে নয়, সরকার ঘোষিত সঠিক নীতিমালার ভিত্তিতে মালের উৎস স্থলে (লোড পয়েন্টে) ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে হবে এবং আমদানী কারক বা উৎপাদনকারীর ওজন স্লিপ এর মাধ্যমে ওজন নিশ্চিত করতে হবে। ওভার লোড নিয়ন্ত্রণের নামে স্কেলে চাঁদাবাজী, ড্রাইভার, হেলপার কে মারধর, গাড়ী ভাংচুর সহ সকল প্রকার হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক ঘোষিত ট্রাক কাভার্ডভ্যানের সিটি কর্পোরেশন কর ৫০০ টাকার স্থলে বর্ধিত ১০,০০০ টাকা প্রত্যাহার করতে হবে। সেই সাথে দেশের অন্রঅন্য জেলার ন্যায় চট্টগ্রামেও সিটি কর্পোরেশনের কর ব্যতিত ডকুমেন্ট হালনাগাদ করতে হবে। উল্লেখ্য যে, প্রাইম মুভার থেকে সিটি কর্পোরেশন কর আগের মত ৫০০ টাকা নেয়া হলেও ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান থেকে ১০,০০০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। একই সেক্টরে দুই আইন, এটা অবশ্যই ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিকদের প্রতি বিমাতা সুলভ আচরণ। সবার জন্য এক আইন করতে হবে।

সম্প্রতি মন্ত্রীসভায় পাশকৃত সড়ক পরিবতন আইন-২০১৭ এর পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিকের স্বার্থ পরিপন্থী আইনের ধারাসমূহ অবিলম্বে সংশোধন করতে হবে।

মাননীয় নৌ-পরিবহান মন্ত্রী ও বন্দরের মাননীয় চেয়ারম্যান কর্তৃক আন্ত:জিলা মালামাল পরিবতন সংস্থা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতি কে দেয় বে-টার্মিনালের পাশে (জাইল্লা পাড়ায়) প্রতিশ্রুত টার্মিনারে বাস্তবায়নসহ ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের জন্য আলাদা টার্মিনাল নির্মাণ করতে হবে।

ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান পণ্যবাহী গাড়ী সমূহের সাইডবারী, হুক না খুলে আইন সম্মত নিরাপদ নমুনা, ডিজাইন সম্পর্কিত সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা ঘোষণা করতে হবে।

যত্রতত্র ডকুমেন্ট চেকিং এবং ড্রাইভারের লাইসেন্স চেকিং এর নামে পুলিশি হয়রানি ও ১৫১ ধারা মামলা বন্ধ করতে হবে।

বন্দর হইতে আমদানী কারকের মালামাল বুঝে নেয়ার জন্য আমদানী কারকের নিযুক্তীয় প্রতিষ্ঠানের মালিকের প্রতিনিধি কে সহজপদ্ধতিতে বন্দরে প্রবেশের গেইট পাশ প্রদান করতে হবে।

বিআরটিএ’র আইনের জটিলতা নিরসন করে পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে সহজ পদ্ধতিতে ড্রাইভারদের নতুন লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন এবং ভারীগাড়ি সমূহের ড্রাইভারদের হেভী লাইসেন্স দিতে হবে।

হাইওয়ে রোডে পণ্যবাহি ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান হইতে মালামাল চুরি রোধ ও মামলা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে হয়রানি বন্ধ করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

সংংবাদ সম্মেলনে আন্ত:জিলা পরিবহন ট্রাক ও কভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি লতিফ আহমেদ বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৮৫% পণ্য ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সদস্য ভাইরা সমগ্র বাংলাদেশে পণ্য পরিবহন করে থাকে। শত প্রতিকুলতার মাঝেও এই সেক্টর কোনো সময় বন্ধ হয় নাই। বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী কেন্দ্রিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ট্রাক কাভার্ডভ্যান এর উপর জ্বালাও পোড়াও এর মাঝেও উক্ত সংগঠনের ট্রাক ও কাভার্টভ্যান এক দিনের জন্যও বন্ধ হয়নি। আমরা উল্লেখিত দাবিগুলো আপনাদের মাধ্যমে সদাশয় সরকার ও সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জানাতে চাই।

শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শফিকুর রহমান বলেন,  আমরা বাঁচার তাগিদে এ সমস্ত দাবী-দাওয়া নিয়ে হাজির হয়েছি। কোন হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বা কারো প্ররোচনায় আমরা এ সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করিনি বরং নিজেদের অস্থিত্ব রক্ষার স্বার্থে আজকের এ আয়োজন। আমাদের অভিভাবক সংগঠন চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের  সভাপতি মাহাবুবুল আলমের পরামর্শে আমরা বৃহত্তর কোন কর্মসূচিতে না গিয়ে আজ এ সম্মেলেনের আয়োজন করেছি। আগামী ৩০শে জুনের মধ্যে আমাদের নয় দফা দাবী মেনে নেওয়া না হলে লাগাতার কর্মবিরতি সহ বৃহত্তর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।

সংবাদ সম্মেলনে আরোও উপস্থিত ছিলেন আন্ত:জিলা পরিবহন ট্রাক ও কভার্ডভ্যান মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি অনিল চন্দ্র পাল, সাধারণ সম্পাদক হাজী সবুর আহমদ, সহ-সভাপতি এম কিবরিয়া দোভাষ,

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো: সুফিউর রহমান টিপু।

উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি ইছা দুলাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ মজুমদার মানিক, আরিফুর রহমান রুবেল, আইন সম্পাদক আলমগীর হোসেন বাবুল, দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান মুন্না, ক্রীড়া সম্পাদক নুরে আলম রনি, মনিরুল ইসলাম চৌধুরী, শামসুজ্জামান সুমন, হারুনুর রশিদ দিদার প্রমুখ।

——–

হাকিম

 

সর্বশেষ সংবাদ


নোটিশ : “এই মাত্র পাওয়া” খবর আপনার মোবাইলে পেতে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশন থেকে START পাঠিয়ে দিন 4848 নম্বরে ।
ctgnew
প্রধান উপদেষ্টা : আব্দুল গাফফার চৌধুরী
সম্পাদক : সোয়েব উদ্দিন কবির
ঠিকানা : ৯২ মোমিন রোড ,
শাহ আনিস মার্কেট ৫ম তলা, চট্রগ্রাম ।
মোবাইল : ০১৮১৬-৫৫৩৩৬৬
টিএন্ডটি : ০৩১-৬৩৬২০০

Design and Development by : Creative Workshop

49 queries in 1.124 seconds.