বাঁশখালীতে আটকে পড়া স্ক্র্যাব জাহাজের ১৯ ওয়াচম্যান জিম্মি, মালামাল লুট – Ctgnews
ctgnew

বাঁশখালীতে আটকে পড়া স্ক্র্যাব জাহাজের ১৯ ওয়াচম্যান জিম্মি, মালামাল লুট

সাফি-উল হাকিম:: ইন্দোনেশিয়া থেকে ক্রয় করে আনা হারমোনি মাস নামে একটি কার কেরিয়ার জাহাজের মালামাল লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সমূদ্রে নিম্ন চাপের প্রভাবে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ে গত সোমবার (১২ জুন) রাতে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গর থেকে জাহাজটি ভেসে গিয়ে বাশখালী উপজেলার খানকানাবাদ ইউনিয়নের কদমরসূল প্রেমাশিয়া এলাকার সাঙ্গু নদীর মোহনায় বালুতে আটকে পড়ে। চারদিন পরও জাহাজটি উদ্ধার করতে না পারায় ওয়াচম্যানদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্থানীয় সন্ত্রাসীর ব্যাপক লুটপাট চালাচ্ছে আটকে পড়া ওই জাহাজটিতে।

প্রায় ২০ কোটি টাকা মূল্যের হারমোনিমাস নামে জাহাজটি ইন্দোনেশিয়া থেকে ক্রয় করে আনে সীতাকুণ্ড উপজেলার কদমরসূল এলাকার সাগর উপকূলের এস এইচ এন্টার প্রাইজ। গত শুক্রবার (৯ জুন) জাহাটি বহির্নোঙ্গরে এসে পৌছাঁলে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর পরিদর্শক টিম এটি পর্যবেক্ষণ শেষে মঙ্গলবার (১৩ জুন ) সীতাকুণ্ডে ভিড়ানোর কথা ছিল।

এস এইচ এন্টার প্রাইজ এর সত্তাধিকারি আলহাজ্ব কামাল উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, উত্তাল সাগরের স্রোতে পাঁচহাজার সাতশ টন ওজনের হারমোনিমাস নামে জাহাজটি নিখোঁজ হওয়ার একদিন পর বুধবার (১৪ জুন) বাশখালী উপজেলার খানকানাবাদ ইউনিয়নের কদমরসূল প্রেমাশিয়া এলাকার সাঙ্গু নদীর মোহনায় সন্ধান মেলে। বর্তমানে জাহাজটি বালুতে আটকে পড়েছে। ইতোমধ্যে তিনটি ট্রাকবোট গিয়ে উদ্ধার কাজ চালালেও কোন কাজ হচ্ছে না।

এদিকে জাহাজের মালিক অভিযোগ করে বলেছেন, নৌবাহিনীর পর্যবেক্ষণ টিমের বিলম্ব হওয়ার কারণেই আজকের এই পরিস্থিতির শিকার হতে হয়েছে আমাকে। মঙ্গলবার (১৩ জুন ) সীতাকুণ্ডে কদমরসূলে সাগর উপকূলে জাহাজটি ভিড়ানোর কথা ছিল। সাগর উত্তালের কারণে জাহাজে নেভির পর্যবেক্ষণ দল উঠতে পারেনি বলে নেভির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

কার কেরিয়ার হিসেবে জাহাজটি ব্যবহার করা হতো। তবে জাহাজটিতে প্রচুর পরিমাণে রেফ্রিজারেটর,ইঞ্জিন, ফার্নিচারসহ কোটি কোটি টাকার জিনিসপত্র রয়েছে বলে জানান জাহাজটির মালিক।

জাহাজটিতে মালিকের নিয়োগকৃত ১৯ জন ওয়াচম্যান রয়েছে। ওয়াচম্যান ইনচার্জ মোঃ জাহেদ জানিয়েছেন জাহাজটি প্রেমাশিয়ার এলাকার সাঙ্গু নদীর মোহনায় বালুতে আটকে যাওয়ার পর থেকে তাদের জিম্মি করে জাহাজের মালামাল লুট করতে স্থানীয় একটি চক্র সক্রিয় হচ্ছে। অস্ত্রের মুখে তাদের জিম্মি করে রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে ফ্রিজ, টেলিভিশনসহ বেশ কিছু মালামাল নৌকা করে এসে নিয়ে গেছে। নিরস্ত্র হওয়ায় তাদের পক্ষে সেখানে কিছুই করার নেই বলে জানান জাহেদ।

এদিকে কোস্টগার্ড পূর্বজোনের দায়িত্বে থাকা লে.কমান্ডার ডিকসন চৌধুরী সিটিজিনিউজকে জানান, প্রচ- উত্তাল সাগরের মধ্যেই হারমোনি মাস নামে কার কেরিয়ার জাহাজটি ট্রাক ভেসেল দিয়ে টেনে সীতাকু-ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। এসময় শিকল ছিড়ে জাহাজটি পিছনের দিকে সড়ে যায়। একপর্যায়ে জাহাজটি বাঁশখালী উপজেলার খানকানাবাদ ইউনিয়নের ঠিক সাঙ্গু নদীর মোহনায়(সাঙ্গু রিভার মাউথ) বালিতে গিয়ে আটকে পড়ে।

জাহাজটির মালামাল চুরি ও লুটপাটের বিষয়ে লে.কমান্ডার ডিকসন বলেন, আমাদের একটি পেট্রোল টিম সাগরে নিয়মিত টহলের পাশাপাশি জাহাজটির নিরাত্তায় বিশেষ নজরদারী রাখছেন। জাহাজটি আটকে পড়ার প্রথম দিন জাহাজের মালামাল চুরির বিষয়ে জাহাজটির ওয়াচম্যানরা আমাদের জানান নি। পরের দিন ওয়াচম্যানদের কাছে জানতে পেরে মালামাল চুরির বিষয়টি গুরোত্ব দিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সাথে সমন্বয় করে জাহাজটির আশপাশে নিরাপত্তা জোর দার করা হয়েছে।

জাহাজটি কবে নাগাদ সাঙ্গু মোহনা থেকে উদ্ধার করা সম্ভব এ ব্যাপারে জাহাজটির ক্যাপটেন এনাম চৌধুরী জানিয়েছেন, জাহাজটি বালুতে আটকে আছে। জাহাজটি ভাসতে সক্ষমের জন্য এখন সমূদ্রের স্রোত অনুকূলে নেই। জাহাজটি টেনে নিয়ে আসার বিষয়টি নির্ভর করে সমূদ্রের স্রোতের উপর

জাহাজটির মালামাল চুরি হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে খানকানাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বদরুদ্দিন চৌধুরী জানান, সাগর উত্তালের কারণে একটি জাহাজ প্রেমাশিয়া এলাকার সাঙ্গু নদীর মোহনায় আটকে পড়ার বিষয়টি তিনি অবগত আছেন। এলাকাটিতে শসস্ত্র ডাকাতদল দলের কথা স্বীকার করে চেয়ারম্যান বদরুদ্দিন বলেন, প্রশাসনের লোকজনের সাথে সমন্বয় করে জাহাজটি মালামাল রক্ষণাবেক্ষণের তদারকি করছি। জাহাজটির কোন ধরনের জিনিসপত্র যাতে কেউ সরিয়ে নিতে না পারে সে ব্যাপারে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আলমগীর হোসেন সিটিজিনিউজকে জানান, চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গর থেকে ভেসে আসা জাহাজ হারমোনি মাস সাঙ্গু মোহনায় আটকে পড়ার পরপরই খবর পাই। পরে পুলিশ গিয়ে জাহাজটির কাছ থেকে দেখে আসে। যেহেতু সাগরে পুলিশের কিছু করার সুযোগ নেই সে জন্য দিনে একবার সাগরের পার থেকেই জাহাজটি দেখে আসার নির্দেশনা দেওয়া আছে। মালামাল চুরি ও ওয়াচম্যান জিম্মির বিষয়টি অবগত নন বলে জানান ওসি।

সর্বশেষ সংবাদ


নোটিশ : “এই মাত্র পাওয়া” খবর আপনার মোবাইলে পেতে আপনার মোবাইলের ম্যাসেজ অপশন থেকে START পাঠিয়ে দিন 4848 নম্বরে ।
ctgnew
প্রধান উপদেষ্টা : আব্দুল গাফফার চৌধুরী
সম্পাদক : সোয়েব উদ্দিন কবির
ঠিকানা : ৯২ মোমিন রোড ,
শাহ আনিস মার্কেট ৫ম তলা, চট্রগ্রাম ।
মোবাইল : ০১৮১৬-৫৫৩৩৬৬
টিএন্ডটি : ০৩১-৬৩৬২০০

Design and Development by : Creative Workshop

47 queries in 0.838 seconds.