চট্টগ্রাম নগরীর বুকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে অছে সম্ভাবনাময় পর্যটন স্পট ,পর্যটন দিবস আজ

0 38

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

শাওন আজহার ::   অপরুপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি এই বাংলাদেশ। পাহাড়,নদী,সমুদ্রের মিলন মেলায় বর্ষিয়ান হয়ে ওঠে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য। আজ ২৭ শে সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন দিবস।

বাংলাদেশে পর্যটন স্পটের আপার সম্ভাবনা থাকলেও পিছিয়ে আছে নানারকম পদক্ষেপের অভাব সৃষ্টি মধ্যে দিয়ে।দক্ষিণে চট্টগ্রামের বিভিন্ন পর্যটন স্পটগুলো হল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনাময় উৎস।তাছাড়া, বাংলাদেশের চট্রগ্রাম জেলার আনাছে-কানাছে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে সম্ভাবনাময় পর্যটন স্পট যা, অনেকাংশে অগোচরে রয়ে যায়।

রাণী রাশমনি বারুণী স্থান ঘাট :
চট্টগ্রাম নগরীর গা ঘেঁষে প্রাকৃতিকভাবে গড়ে উঠেছে রাণী রাশমণি স্থান ঘাট যাকে স্থানীয় ভাষায় জেলে পাড়াও বলা হয়।
অপরুপ সৌন্দর্যের সমুদ্রের হাতছানি দিয়ে যায় রাণী রাশমণি ঘাটে।

ইলিশের মৌসুমে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশের বেচা-কেনা হয় এ ঘাটে।স্থানীয় দর্শনার্থী থেকে শুরু করে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে ছুটির দিনগুলোতে সমাগম ঘটে এ ঘাটে।

এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, মৃদুুমন্দ বাতাস, সাম্পাননৌকা, জেলেদের মাছ ধরা আর তাদের জীবনযাপন আপনাকে মুগ্ধ করবে। আর সন্ধ্যার সূর্যাস্ত আপনাকে আকৃষ্ট করবে।

এমন নিরিবিলি সূর্যাস্ত হয়তো আপনি আর কোথাও দেখতে পারবেন না। সবকিছু মিলিয়ে এটি হতে পারে আপনার জন্য একটি নতুন অভিজ্ঞতা।

কুমিরা ঘাট :
চট্টগ্রাম নগরী হতে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরবর্তী সীতাকুন্ড থানাধীন কুমিরা ঘাটের গন্তব্যস্থল। একনজরে দেখলে সন্ধ্যেবেলা একে সিঙ্গারপুর বলে ভুল করা অস্বাভাবিক নয়।

বাণিজ্যিক জাহাজ কাটা শিল্পের আবির্ভাব ঘটলেও এখানে সন্দীপগামীদের যাতায়াত ঘাট রয়েছে। তাছাড়া দেখা যায় নগরীর ভ্রমণ পিয়াসু পর্যটকরা সময় পেলেই চলে আসে কুমিরা ঘাটে। চটগ্রামে পর্যটনখাতে অপার সম্ভাবনার একটি উৎস হলো কুমিরা ঘাট।

ফতেয়াবাদ , ঠান্ডাছড়ি পিকনিক স্পট :
ফতেয়াবাদ  যা চট্টগ্রাম নগরী হতে প্রায় ১২ কিলোমিটার দূরবর্তী এলাকায়। ফতেয়াবাদ কলেজের রাস্তা দিয়ে যেতে হয় ঠান্ডা ছড়ি পিকনিক স্পটে।
ঠান্ডাছড়ি পিকনিক স্পটটি সম্পর্কে অনেকেরি অজানা। যদিও , তৎকালীন মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরী এ স্পটটি উদ্বোধন করেন নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে দিয়ে।
ছোট পরিসরে গড়ে উঠেছে লেক। পাহাড়ের বেষ্টেিনতে ঘেরা লেকটি।আশে-পাশে শাক-সবজির ক্ষেত । কিছুসংখ্যক পরিবারের বসবাস এ ভূমিতে।
ঠান্ডাছড়ির মত সম্ভাবনাময় পিকনিক স্পটের সন্ধান জনগণের দ্বারকোণায় পৌঁছিয়ে দিলে সৃষ্টি হতে পারে চট্টগ্রামের আরেকটি নতুন পর্যটনের ক্ষেত্র।

পর্যটন খাতকে চাঙ্গা ও উন্নত করতে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করলে জাতীয় অর্থনীতিতে শুভ ফল আসবে।

সিটিজিনিউজ / এসএ

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.