মহাসপ্তমী আজ

0
14

নিউজ ডেস্ক   ::     আজ মহাসপ্তমী বিহিত পূজা, শারদীয় দুর্গোৎসবের দ্বিতীয় দিন৷ মহাসপ্তমী উপলক্ষে বুধবার সকালে পূজা শেষ সকল মণ্ডপে দেবীর চরণে পুষ্পাঞ্জলি অর্পন করা হবে৷এর আগে মঙ্গলবার দশভুজা দেবীকে আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠিত হয় শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রথম দিনের মহাষষ্ঠী বিহিত পূজা।

মূলত মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাষ্টমী এবং মহানবমীতেই পূজার মূল আকর্ষণ। কারণ এই তিনদিনই ভক্তগণ মায়ের চরণে পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করে থাকেন। বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবীর বিদায়। হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এ ধর্মীয় উৎসবকে ঘিরে সারা দেশে এখন উৎসবের আমেজ বইছে।

সারা দেশে এবার পূজার সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৭টি। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ২৯ হাজার ৩৯৫টি। গতবারের চেয়েও বেশি ৬৮২টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। রাজধানী ঢাকায় এবার পূজা হচ্ছে ২৩১টি, গত বছর এই সংখ্যা ছিল ২২৯। এ বছর দুটি বেড়েছে। সবচাইতে বেশি পূজা হচ্ছে চট্টগ্রামে ১ হাজার ৭শ ৬৭টি।

এরপরে দিনাজপুরে ১ হাজার ২শ ৪২টি। গোপালগঞ্জে পূজা হচ্ছে ১ হাজার ১শ ৭৫টি। বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার মর্ত্যলোকে (পৃথিবী) এসেছেন নৌকায় চড়ে। ফলে ধরণীতে শস্য বৃদ্ধি পাবে।

আর বিজয়া দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবী স্বর্গলোকে বিদায় নেবেন ঘোটকে চড়ে, ফল-ছত্রভঙ্গস্তুরঙ্গমে। মঙ্গলবার সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে কল্পারম্ভ এবং বিকাল ৪টায় বোধন আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যদিয়ে দুর্গোৎসবের প্রথমদিন ষষ্ঠী পূজা সম্পন্ন হয়।

এদিন সকাল থেকে চণ্ডিপাঠে মুখরিত হয় প্রতিটি মণ্ডপ। আজ মহাসপ্তমী, ২৮ সেপ্টেম্বর মহাঅষ্টমী ও কুমারী পূজা, ২৯ সেপ্টেম্বর মহানবমী বিহিত পূজা এবং ৩০ সেপ্টেম্বর বিজয়া দশমী ও দর্পণ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই উৎসব। ঢাকেশ্বরী মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে।

এছাড়া রাজধানীর রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ পূজামণ্ডপ, রমনা কালীমন্দির ও আনন্দময়ী আশ্রম, গুলশান বনানী সার্বজনীন পূজা পরিষদ মণ্ডপ, ধানমন্ডির কলাবাগান পূজামণ্ডপ, বরোদেশ্বরী কালীমাতা মন্দির ও শ্মশান, সিদ্ধেশ্বরী কালিমাতা, ভোলানাথ মন্দির আশ্রম, জগন্নাথ হল, পুরান ঢাকার সূত্রাপুর, শাঁখারি বাজারসহ অন্যান্য মণ্ডপে দুর্গোৎসবের ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

সিটিজিনিউজ / এসএ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here