এবার বৃষ্টি আইনের ফাঁদে ইংল্যান্ডের ওয়ানডে

0
12

ক্রিয়া ডেস্ক     ::   রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ না ছাড়তে ডাবল সেঞ্চুরিটাও হয়ে যেতে পারতো এভিন লুইসের। হার না মানা ১৭৬ রান করে মাঠ ছাড়েন তিনি। এই ওপেনারের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দিনে ৫ উইকেট তুলে নিয়েছেন আবার আলজারি জোসেফ।

কিন্তু বেরসিক বৃষ্টি তাদের দিনটা রাঙিয়ে নিতে দিল না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দিনকে মাটি করে দিয়ে বৃষ্টি আশীর্বাদ হয়ে এসেছে ইংল্যান্ডের জন্য। লুইসের সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩৫৬ রান করেও হারতে হয়েছে ক্যারিবিয়ানদের ডাকওয়ার্থ-লুইস মেথডে। ৩৫.১ ওভারে ৫ উইকেটে ২৫৮ রান করে ইংল্যান্ড পেয়েছে ৬ রানের জয়।

তাতে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ এক ম্যাচ হাতে রেখেই স্বাগতিকরা জিতে নিয়েছে ৩-০ ব্যবধানে। লন্ডনের চতুর্থ ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ের সময় ৩৫.১ ওভারে শুরু হয় বৃষ্টি। শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া ঠিক না হওয়ায় বৃষ্টি আইনে ৬ রানের জয় পায় ইংল্যান্ড। অথচ রানের পাহাড় গড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজর দিকে জয়ের পাল্লা ছিল ভারী। লুইসের দুর্দান্ত ইনিংসে বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল সফরকারীরা।

ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে এই ওপেনার ১৩০ বলে খেলেন হার না মানা ১৭৬ রানের ইনিংস। ব্যথা পেয়ে স্টেচারে করে মাঠ ছাড়ার আগে তার ইনিংসে ছিল ১৭টি চার ও ৭টি ছক্কার মার। তার সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামা ক্রিস গেইল অবশ্য সুবিধা করতে পারেননি। ২ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরাও হন ব্যর্থ। তবে দাঁড়িয়ে গিয়েছিলেন অধিনায়ক জেসন হোল্ডার।

এই অলরাউন্ডার ৬২ বলে খেলেন ৭৭ রানের কার্যকরী ইনিংস। তার সঙ্গে জেসন মোহাম্মদের ৪৬ রানের ইনিংসের ওপর ভর দিয়ে ক্যারিবিয়ানরা স্কোরে জমা করে ৩৫৬ রান। জবাবে ইংল্যান্ডের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। দুই ওপেনার জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো যোগ করেন ১২৬ রান। বেয়ারস্টো (৩৯) আউট হলেও রয় খেলেন ৮৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস।

রয়ের আউটের পর ভেঙে পড়ে ইংল্যান্ডের ব্যাটিং লাইন। জোসেফের বোলিং তোপে একে একে মাঠ ছাড়েন জো রুট (১৪), এউইন মরগান (১৯) ও স্যাম বিলিংস (২)। যদিও মঈন আলীকে নিয়ে ঠিকই দাঁড়িয়ে যান জনি বেয়ারস্টো। ষষ্ঠ উইকেটে তাদের জুটিতেই বৃষ্টির আগে স্কোরে জমা করে ইংল্যান্ড ২৫৮ রান। ওভার ও উইকেটের হিসাবে জয়ের জন্য স্বাগতিকদের সেটাই ছিল যথেষ্ট। ক্রিকইনফো

সিটিজিনিউজ / এসএ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here