কাতালানদের ঠেকাতে তৎপর স্পেন গণভোট শুরুর অপেক্ষায়

0 23

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ::   স্পেন সরকারের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই স্বাধীন কাতালোনিয়া প্রতিষ্ঠায় গণভোট শুরু করতে ভোটকেন্দ্রগুলোর পাশে জড়ো হতে শুরু করেছেন কাতালানরা।

সেখানকার কর্মকর্তারা বলছেন, ভোট শুরুর জন্য ব্যালট বাক্স প্রস্তুত রয়েছে এবং গণভোটে ব্যাপক সাড়া মিলবে বলে ধারণা করছেন তারা। খবর বিবিসির।

কাতালান নেতারা জোর দিয়ে বলেছেন, স্থানীয় সময় রোববার সকাল থেকে গণভোট শুরু হবে। তবে ভোটগ্রহণ থামানোর জন্য সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠাচ্ছে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার।

রোববার সকালে ভোট শুরুর কথা থাকলেও ভোটগ্রহণ শুরুর অনেক আগেই গভীর রাত থেকে লাইনে দাঁড়াতে শুরু করেন ভোটাররা।

স্পেন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নতুন দেশ কাতালোনিয়া প্রতিষ্ঠায় সমর্থনকারী হাজার হাজার মানুষ রাতভর ভোটকেন্দ্র হিসেবে ঘোষিত স্কুলগুলো ঘিরে অবস্থান নেন।তবে স্পেনের পুলিশ বলছে, স্বাধীন কাতালোনিয়ার সমর্থকদের উচ্ছেদ করা হবে।

গণভোটের আয়োজনকারীরা ভোটকেন্দ্র ‘রক্ষার’ জন্য ভোটারদের স্থানীয় সময় ভোর ৫টায় ভোটকেন্দ্রগুলোতে উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানান। যদিও ভোট শুরুর কথা স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে।

সামাজিক মাধ্যমে দেওয়া এক বার্তায় আয়োজকরা বলেন, ‘আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে সব বয়সের প্রচুর মানুষ যেন উপস্থিত থাকেন’, যেকোন পুলিশি বাধা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিহত করারও আহ্বান জানানো হয় আয়োজকদের পক্ষ থেকে।

রোববার ‘গণতন্ত্রের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন’ স্থানীয় কাতালান একটি টেলিভিশনকে বলেন আঞ্চলিক ভাইস-প্রেসিডেন্ট ওরিওল জাঙ্কারাস। তিনি বলেন, ‘আমরা অনেকে বাধা অতিক্রম করেছি, এমন কিছু নেই যা আমরা পার হতে পারবো না।’

ওরিওল জাঙ্কারাস আরও বলেন, ‘আমরা যদি নিজেদের অধিকার রক্ষা না করি, তাহলে কে করবে?’ গণভোটে ব্যালট পেপারে কেবল একটি প্রশ্নই থাকবে: ‘আপনি কি চান যে কাতালোনিয়া প্রজাতন্ত্রের আদলে একটি স্বাধীন রাষ্ট্রে পরিণত হোক?’ উত্তর দিতে হবে ‘হ্যাঁ’ অথবা ‘না’।

কাতালোনিয়ার জনসংখ্যা ৭৫ লাখ। সুইজারল্যান্ডের জনসংখ্যার সমান। স্পেনের মোট জনসংখ্যার ১৬ শতাংশ এই কাতালোনিয়ায়। স্পেনের উত্তর-পূর্বের এই প্রদেশটির রাজধানী বার্সেলোনা। তাদের আছে নিজস্ব ভাষাও।

বার্সেলোনা বিশ্বের অত্যন্ত জনপ্রিয় শহরগুলোর একটি, ফুটবল এবং একই সঙ্গে পর্যটনের কারণে। স্পেন সরকার বলছে, এই গণভোট অবৈধ। শুধু তাই নয়, আদালত থেকেও এই ভোটের আয়োজন বন্ধ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সিটিজিনিউজ / এসএ

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.