ক্রিকেটর ইতিহাসে পুরুষের ম্যাচে প্রথম নারী আম্পায়ার

0
17

ক্রিয়া ডেস্ক    ::   ১৯৬৯ সালে চাঁদে মানুষ প্রথম পা রাখে। আর অস্ট্রেলিয়ায় প্রথমবারের মত শুরু হয় সীমিত ওভারের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ‘জেএলটি কাপ’। বেশ কিছু প্রথমের সাক্ষী এই লিস্ট-এ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।

এর মধ্যে আছে ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে প্রথম লিস্ট-এ টুর্নামেন্ট হিসেবে খেলোয়াড়দের জার্সিতে নম্বর ব্যবহার করা। রোববার আরও একটি প্রথমের সাক্ষী হতে যাচ্ছে টুর্নামেন্টটি।

প্রথমবারের মত অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ঘরোয়া পুরুষ টুর্নামেন্টের কোনো ম্যাচে মাঠে আম্পায়ারিং করবেন একজন নারী। সেই নারীর নাম ক্লেয়ার পোলোসাক।

৮ অক্টোবর সিডনির হার্স্টভিল ওভালে এই ঐতিহাসিক ম্যাচে মুখোমুখি হবে নিউ সাউথ ওয়েলস ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একাদশ।

অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের গোল্ডবার্ন শহরে বেড়ে ওঠা পোলোসাকের আদর্শ পাঁচবারের আইসিসি বর্ষসেরা আম্পায়ার সাইমন টোফেল। এই স্বদেশির কাছ থেকেই খুশির এই সংবাদটি পেয়েছেন পোলোসাক।

বয়স মাত্র ২৯ হলেও আম্পায়ারিং অভিজ্ঞতায় কম যান না ইতিহাস হতে যাওয়া এই নারী। অবশ্য এর আগেও একটি প্রথমের ইতিহাস আছে তার।

সেই ইতিহাসটি নারীদের ম্যাচে। প্রথম নারী আম্পায়ার হিসেবে গত গ্রীষ্মে অস্ট্রেলিয়া নারী ঘরোয়া ক্রিকেট লিগের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে দায়িত্ব পালন করেছেন পোলোসাক।

এছাড়া আন্তর্জাতিক খেলায় ২০১৬ সালের নারী টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১৭ সালে নারী বিশ্বকাপে আম্পায়ারিং করেছেন।

হোবার্টে শ্রীলংকা-অস্ট্রেলিয়ার একটি অনুর্ধ-১৯ টেস্ট এবং একটি ওয়ানডে ম্যাচেও আম্পায়ারিংয়ের দায়িত্ব ছিল তার কাঁধে।

পুরুষদের ম্যাচ অবশ্য একেবারে নতুন অভিজ্ঞতা নয় পোলোসাকের জন্য। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার আরেকটি ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ম্যাটাডোর কাপে তৃতীয় আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

সিটিজিনিউজ / এসএ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here