নগরীর চারহাজার অটোরিক্সা চালক দিশেহারা

0

চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পো শ্রমিক ইউনিয়ন এর কেন্দ্রীয় ও শাখা কমিটির প্রতিনিধিদের এক জরুরী সভা ইউনিয়নের সভাপতি হাজী মো: কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো: হারুনুর রশিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।

১০ অক্টোবর‘১৭ইং মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন মিলনায়তনে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক অলি আহমদ। সভায় কেন্দ্রীয় ও শাখা কমিটির নেতৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন।

এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সহ সভাপতি মো: বিপ্লব, যুগ্ম সম্পাদক মো: সোলায়মান, সহ সম্পাদক মো: ওমর ফারুক, অর্থ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: রফিকুল ইসলাম, লাইন সম্পাদক মো: সিরাজুল ইসলাম, পেয়ার আহমদ, কামাল ভান্ডারী, আবু হাওলাদার প্রমুখ। ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন, ২০১৩ সালে মাননীয় যোগাযোগমন্ত্রী চট্টগ্রাম মহানগরীরর জন্য নতুন ৪০০০ সিএনজিচালিত অটোরিকশা বরাদ্দের ঘোষনা দেন এবং বিআরটিএ থেকেও বরাদ্দ সংক্রান্ত খসড়া-নীতিমালা সার্কুলার আকারে প্রচার করলে অত্র সংগঠনের সদস্য ও চালকেরা, মালিকেরা জীবন জীবিকার স্থায়ী কর্মসংস্থানের প্রয়াসে নানা কষ্টকর পদ্ধতিতে অটোরিকশা ক্রয় করে।

চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন এক বৈঠকে মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ ৪০০০ সিএনজিচালিত অটোরিকশার রেজিষ্ট্রেশন অনুমোদন দেয়ার প্রস্তাব গৃহীত হলেও দুর্ভাগ্যজনকভাবে অদ্যবাধি রেজিষ্ট্রেশন দেয়া হয়নি। নেতৃবৃন্দগণ আগামী ১৫ দিনের মধ্যে রেজিষ্ট্রেশন দেয়ার জোর দাবি জানান।

বক্তাগণ আরো বলেন, চট্টগ্রামের জন্য আলাদা নীতিমালা করে মালিকের দৈনিক জমা পুন:নির্ধারণের জন্য। মহানগরীতে একদিকে রাস্তাঘাটের যে বেহাল দশা তাতে গাড়ি চালানো যেমন কষ্টকর, তেমনি মালিকের জমা ৯০০ টাকা দেয়াও কষ্টকর। তাই নেতৃবৃন্দ মালিকের দৈনিক জমা ৬০০ টাকা পুন: নির্ধারণের দাবি জানান। ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দগণ আরো বলেন, গত ০৯ এপ্রিল সড়ক ও সেতুমন্ত্রী, বিআরটিএ চেয়ারম্যান, মেয়র, পুলিশ কমিশনারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের কাছে দেয়া চট্টগ্রাম মহানগরী ও জেলায় চলাচলকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও অটোটেম্পোর চালকদের কর্ম ও জীবন জীবিকার ন্যায়সঙ্গত ১২ দফা দাবীও বাস্তবায়নের জোর দাবি জানান।

Share.

Leave A Reply