সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির অফিসে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবী

0
4

নগরীর বায়েজিদ থানাধীন শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটি অফিসে হামলাকারী ও ইন্ধনদাতাদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন চট্টগ্রামের সর্বস্তরের সাংবাদিক নেতারা। অন্যথায় সাংবাদিকরা কঠোর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) ও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব এ প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।  সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির সভাপতি স্বপন মল্লিকের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন সিইউজে সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির সহ সভাপতি সমীর কান্তি বড়ুয়া, সিইউজের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, সাংবাদিক নেতা রতন কান্তি দেবাশীষ, চৌধুরী ফরিদ, মিন্টু চৌধুরী, সারোয়ার সুমন, শামসুল ইসলাম, রাশেদ মাহমুদ, অনিন্দ্য টিটো, আব্দুর রউফ পাটোয়ারী, শাহরিয়ার হাসান, প্রীতম দাশ প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির সম্পাদক হাসান ফেরদৌস।

বক্তারা অভিযোগ করেন, শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং এলাকায় আবাসন বঞ্চিত সাংবাদিকদের জন্য আবাসন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন যখন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তখন সেই সম্ভাবনাকে ধ্বংস করতে একটি চক্র ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, কোনো ষড়যন্ত্র করে সাংবাদিকদের আবাসন বঞ্চিত করা যাবে না। যারা সাংবাদিক নেতাদের নামে মিথ্যা, অশ্লীল প্রচারপত্র, লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে সাধারণ সদস্যরা তাদের ক্ষমা করবে না।

বুধবার (১১ অক্টোবর) রাতে শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং এলাকায় হাউজিং সোসাইটি অফিসে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। এ সময় অফিসের ভেতরে সোসাইটির সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, কোষাধ্যক্ষ নুর উদ্দিন আহমেদ, সদস্য আলোকময় তলাপাত্র, মসজিদ কমিটির সম্পাদক নুরুল করিম বাচ্চুসহ হাউজিং সোসাইটি এলাকার বাসিন্দারা সভা করছিলেন। এ ঘটনায় হাউজিং সোসাইটি এলাকার নিরাপত্তাকর্মী আবদুর রশিদ বাদি হয়ে বায়োজিদ থানায় বেআইনি জনতা গঠন করে অনধিকার প্রবেশের মাধ্যমে হত্যার চেষ্টা, অফিসের ক্ষতিসাধন, মিথ্যা অপপ্রচারের মাধ্যমে মানহানি ও হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৪৩/৪৪৮/৫১১/৪২৭/৩২৩/৩০৭/৫০৬/৫০০ ধারায় অজ্ঞাতনামা ১০-১২ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

মামলায় এসব ঘটনার সঙ্গে ইন্ধনদাতা হিসেবে সাতজনের নাম উল্লেখ করা হয়।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here