`যোগ্য বিবেচিত না হয়েও ক্যাডার সার্ভিসে প্রবেশ’

0
20

যোগ্য বিবেচিত না হয়েও ক্যাডার সার্ভিসে প্রবেশ করানোর পায়তারা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে।  এ অবস্থায় ‘জাতীয়করণকৃত বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের ক্যাডারভূক্ত করা হলে বর্তমানে বিসিএস (বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস) শিক্ষা ক্যাডারের সিনিয়র-জুনিয়রসহ প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষক সংখ্যালঘু অংশে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা করছে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি।

রোববার (২২ অক্টোবর) বেলা ১২টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে বিসিএস সাধারণ শিক্ষ‍া সমিতি চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. নুরুল ইসলাম এ আশঙ্কার কথা জানান। তিনি বলেন, এতে ক্যাডারের শৃঙ্খলায় বিপর্যয় নিয়ে আসবে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, এমনিতেই নানামূখি সংকটে নিমজ্জিত শিক্ষা ক্যাডার। তার সাথে যুক্ত হতে চলেছে জাতীয়করণের তালিকায় থাকা ৩২৫ টির মত বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের শিক্ষা ক্যাডারে আত্তীকরণের আশংকা। বিসিএস পরীক্ষায় যোগ্য বিবেচিত না হয়েও ক্যাডার সার্ভিসে প্রবেশের যেকোন উদ্যোগ আমরা প্রতিহত করবো। আগামী ১৬ নভেম্বরের মধ্যে জাতীয়করণের জন্য ঘোষিত বেসরকারি কলেজের শিক্ষকদের প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন, নন-ক্যাডার ও জাতীয় শিক্ষানীতি ২১০ এ বর্ণিত নির্দেশনা অন্তর্ভূক্ত করে বিধিমালা জারি করা না হলে পরদিন ঢাকায় বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি মহাসমাবেশ ডেকে পরবর্তী কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি কেন্দ্রিয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক সুমন বড়ুয়া বলেন, দেশের প্রত্যেক উপজেলা পর্যায়ে একটি করে বেসরকারি কলেজ জাতীয়করণ হোক। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনে এসব কলেজ জাতীয়করণের উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তবে এক্ষেত্রে জাতীয়করণকৃত কলেজ শিক্ষকদের ক্যাডারভূক্ত করা যাবে না। কেননা, আমরা বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে দায়িত্ব পালন করছি। আমরা পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে বিভিন্ন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ক্যাডারভূক্ত হয়েছি।

‘ ক্যাডারে অন্তর্ভূক্ত হওয়ার আগে পুলিশ ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে যাচাই বাছাই করেই চাকরিতে যোগদান করেছি। এখন যেসব বেসরকারি কলেজ জাতীয়করণে উন্নীত করার প্রক্রিয়া চলছে, এসব শিক্ষকরা যদি কোন পরীক্ষা ও পক্রিয়া ছাড়াই শিক্ষা ক্যাডারে অন্তর্ভূক্ত হয়, তাহলে শিক্ষা ক্যাডারে চরম বিশৃঙ্খলা এবং শিক্ষার মান প্রশ্নবিদ্ধ হবে। যা কাম্য নয়। এক্ষেত্রে অবশ্যই জাতীয়করণকৃত কলেজ শিক্ষকদের নন ক্যাডারে রাখতে হবে।’

১০ হাজার শিক্ষক আত্তীকরণ হয়েছে জানিয়ে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এর আলোকে ‘জাতীয়করণকৃত কলেজের শিক্ষকবৃন্দকে নন ক্যাডার করে, তাদের চাকরি প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন অনুযায়ী স্ব স্ব কলেজে সুনির্দিষ্ট করে ১৬ নভেম্বরের মধ্যে স্বতন্ত্র বিধিমালা জারি, জাতীয়করণের আদেশ জারির পূর্বেই বিধিমালা প্রণয়, সরকারি কর্মকমিশন কর্তৃক গৃহিত প্রতিযোগিতামূলক বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগের জন্য সুপারিশ ব্যতিত অন্য কোন প্রক্রিয়া কোন ব্যক্তিকে ক্যাডারভূক্ত না করা এবং সম্প্রতি সরকারিকরণ করা ১২টি মডেল কলেজের শিক্ষকদেরও অনুরূপ বিধিমালার আওতায় আনতে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেন বক্তারা।

মতবিনিময়কালে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সমিতি চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি অধ্যাপক মো. আবদুল মুবিন, কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সুকুমার দত্ত, সাংগঠনিক সচিব অধ্যাপক ড. নুরুল বশর, প্রফেসর মো. দৌলতুর রহমান, প্রফেসর মো. গোলাম কিবরিয়া, প্রফেসর মো. জাহেদুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সিটিজিনিউজ/এইচএম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here