পাহাড় বিক্রির অর্জিত অর্থে সন্ত্রাসীদের অভয়াশ্রম গড়ে মশিউর

0 35

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুর এলাকায় আড়াই হাজার একর সরকারি বনভূমির অলিখিত মালিক বনে যাওয়া মশিউর বাহিনীর প্রধান কাজী মশিউর রহমানকে (৫৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭। উদ্ধার করা হয় ১টি ৭.৬৫ মিমি বিদেশি পিস্তল, ১০টি ওয়ান শ্যুটারগান, ৫টি এসবিবিএল, ১টি পিস্তলের ম্যাগাজিন, ২২ রাউন্ড গুলি-কার্তুজ এবং ৪ রাউন্ড খালি খোসা।

সোমবার (২৩ অক্টোবর) ভোর রাত চারটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭ এর একটি অভিযানিক দল তাকে গ্রেফতার করে। এসময় মশিউরের সহযোগী সাতকানিয়ার বাবধোনা মৌলভীপাড়ার মো. শফিকের ছেলে মো. রফিককেও (২৫) গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মিমতানুর রহমান  জানান, পাহাড় বিক্রির অর্জিত অর্থ দিয়ে কয়েক বছরে দেশের নানা প্রান্তের সন্ত্রাসীদের অভয়াশ্রম হিসেবে জঙ্গল সলিমপুরে বিশাল সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তুলেছিল খুলনার ফুলতলা পাইগ্রামের কাজী হাসান আলীর ছেলে মশিউর। মশিউরের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের বিভিন্ন থানায় খুন, ধর্ষণ, হানাহানি, অপহরণ ও জবর দখলসহ বিভিন্ন অপরাধের ৩০টির বেশি মামলা রয়েছে।

তিনি বলেন, র‌্যাব-৭ মশিউরকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রেখেছিল। এরই প্রেক্ষিতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড থানাধীন জঙ্গল সলিমপুরের মশিউর সহযোগীদের নিয়ে ছিন্নমূল এলাকায় অবস্থান করছে। এ তথ্যের ভিত্তিতে ভোররাত চারটার সময় র‌্যাব-৭ এর একটি অভিযানিক দল সলিমপুরের ছিন্নমূল এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মশিউর ও তার সহযোগী রফিককে গ্রেফতার করে। রফিকের বিরুদ্ধে আটটির বেশি মামলা রয়েছে।

গ্রেফতার দুই আসামি এবং উদ্ধার করা অস্ত্র সংক্রান্ত পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানান মিমতানুর রহমান।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.