ম্যাজিস্ট্রেটের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা কিশোরীর

0
16

কনের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল জোরেসোরে। কিছুক্ষণ পরই আসবে বর। খাবার-দাবার সেরে নিয়ে যাবে কনেকে। কিন্তু এর আগেই হাজির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এসেই মেয়ের বাবা-মাকে বললেন-‘এটি বাল্যবিয়ে, বন্ধ করুন।’ লহমায় থেমে গেল বিয়ের সমস্ত আয়োজন। বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল বছর পনেরোর কিশোরী।

শুক্রবার (৩ নভেম্বর) সকালের এই ঘটনাটি আনোয়ারা উপজেলার পরৈকোড়া ইউনিয়নের ভিংরোল গ্রামের।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবদুল মোবিন বলেন, স্থানীয় মাহতা পাটনিকোঠা বিদ্যালয়ের ১৫ বছর বয়সী নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে পাশের দেওতলা গ্রামের ২৫ বছর বয়সী ব্যবসায়ী ওসমান আলীর বিয়ের আয়োজন চলছিল। দুপুরেই কনেকে বরের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছে এমন অভিযোগ পেয়ে সেখানে অভিযান চালাই।

‘মেয়ের বাবা-মাকে বলে দিয়েছি মেয়েকে পড়াশোনা করাতে। প্রাপ্তবয়স্ক হলেই তবে বিয়ে দিতে। মেয়ের বাবা এ সংক্রান্ত মুচলেকা দিয়েছেন।’–যোগ করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

মুচলেকা দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে মেয়ের বাবা বলেন, ‘প্রশাসন মুচলেকা নিয়েছে। এখন কী করব, বুঝে উঠতে পারছি না।’

আর হাফ ছেড়ে বেঁচে কিশোরী বললো শুধু দুটো লাইন, ‘বিয়ের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমি পড়ালেখা করতে চাই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here