ফাঁদ পাতেন আতাউর টাকা তোলেন রনি

0

সুদুর কাতারে বসে সিএমপির আলোচিত সাবেক কমিশনার আব্দুল জলিল মন্ডলের নামে ফেসবুকে আইডি খুলে প্রতারণার ফাঁদ পাতেন ফেনীর যুবক আতাউর। কখনও মসজিদ-মাদ্রাসা নির্মাণ, কখনও চাকুরি দেওয়া কিংবা মোটর সাইকেল বিক্রির কথা বলে মানুষকে বোকা বানিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে লক্ষ, লক্ষ টাকা। এই প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে টাকা হারিয়েছেন কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তাও।

সিএমপির গোয়েন্দা ইউনিটের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (এডিসি-বন্দর) এ বি সিদ্দিক জানিয়েছেন, আতাউর কাতারে বসে দুটি ফেসবুক আইডি খুলেন। সেখানে বসবাসরত হুন্ডি ব্যবসায়ী নজরুলকে নিজের সহযোগী হিসেবে নেন। নজরুলের নির্দেশে ফেনীর দাগনভূঁইয়ার মোবাইল ব্যবসায়ী রনি বিকাশে টাকা সংগ্রহ করতেন। রনি টাকাগুলো নজরুলের কথামতো দেশে বিভিন্নজনকে দিতেন। সেই টাকা পৌঁছত কাতারে নজরুলের কাছে। আতাউর নজরুলের কাছ থেকে কাতারের মুদ্রায় সেই টাকা সংগ্রহ করতেন।

রনিকে শনিবার (০৪ নভেম্বর) রাতে ফেনীর দাগনভূঁইয়ায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। নজরুলের বাড়ি ফেনীর এলাহীবাদ। আর আতাউরের বাড়ি চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা গ্রামে।আতাউর কাতারে বসে দুটি ফেসবুক আইডি খুলেন

নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারি কমিশনার (বন্দর) আসিফ মহিউদ্দিন জানান, ভূয়া ফেসবুক আইডির সঙ্গে আতাউরের সম্পৃক্ততার তথ্য তিন মাস আগে পেয়েছিল পুলিশ। তবে পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিকাশের মাধ্যমে টাকা সংগ্রহের বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালিয়ে প্রথমে রনিকে আটক করা হয়। রনি নজরুলের কথা জানায়। নজরুলের বাড়িতে গিয়ে পুলিশ তার স্বজনদের মাধ্যমে মোবাইলে কাতারে তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়। এসময় নজরুল আতাউরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আতাউর ফোনে পুরো বিষয়টি স্বীকার করে ক্ষমা চান পুলিশের কাছে।

সূত্রমতে, গত মে মাসে প্রথমে একটি আইডি খুলে পুলিশ অফিসারদের ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠাতে শুরু করেন আতাউর। মন্ডলের নাম দেখে পুলিশ কর্মকর্তারা আগ্রহী হন আর সবার মধ্যে বিশ্বাসও জন্মে। এরপর মোটর সাইকেলের ছবি দিয়ে বিক্রির বিজ্ঞাপন দেন নিজের টাইমলাইনে। চারমাস আগে আরও একটি আইডি খুলে মসজিদ-মাদ্রাসা এবং চাকুরি দেওয়ার নামে টাকাপয়সা খোঁজা শুরু করেন আতাউর।

গত ৩-৪ মাসে আতাউর এই প্রক্রিয়ায় প্রায় ৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে তথ্য পাওয়ার কথা জানান এডিসি সিদ্দিক।

তিনি জানান, মোটর সাইকেলের দরদাম হওয়ার পর রাজারবাগ পুলিশ লাইন থেকে সেটি ডেলিভারি নেয়ার কথা বলত আতাউর। দুজন পুলিশ সদস্যও তার প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে টাকা হারিয়েছেন।

রনিকে শনিবার (০৪ নভেম্বর) রাতে ফেনীর দাগনভূঁইয়ায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

গত সেপ্টেম্বর মাসে নগরীর হালিশহরের সুমন নামে এক যুবক প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে ২৫ হাজার টাকা পাঠিয়েছেন মোটর সাইকেলের জন্য। তাকে নগরীর লালদিঘীর পাড়ে সিএমপিতে গিয়ে মোটর সাইকেল বুঝে নেওয়ার কথা বলেছিলেন আতাউর। কিন্তু সুমন লালদিঘীতে গিয়ে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে ইপিজেড থানায় একটি প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। আটক রনিকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

আব্দুল জলিল মন্ডল ২০১৬ সালে সিএমপি থেকে বদলির পর র‌্যাব সদর দফতরে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি তিনি অবসরে গেছেন। সিএমপিতে যোগ দিয়ে বিলবোর্ড এবং ভাসমান হকার উচ্ছেদ, নগরীতে পরিচ্ছন্নতা অভিযানের মতো ব্যতিক্রমী কাজ করে মানুষের নজর কেড়েছিলেন জলিল মন্ডল।

সিটিজিনিউজ/এইচএম

Share.

Leave A Reply