উপাচার্যের কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা

0

উপাচার্যের কার্যালয়ে ভাঙচুরের ঘটনায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে মামলা করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

হাটহাজারী থানায় বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে মামলাটি করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. কামরুল হুদা।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন হামলাকারীদের নাম উল্লেখ না করলেও তাতে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির (স্থগিত) সভাপতি আলমগীর টিপুর অনুসারীরা ছিলেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

এদিকে মামলা হওয়ার আগে বিকাল ৫টার দিকে নিজের ফেইসবুক একাউন্ট থেকে একটি স্ট্যাটাস দেন টিপু।

তাতে তিনি লেখেন, “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এর নেতাকর্মীর নাম দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি কোনো মামলা করে তাহলে আগামীকাল থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য অবরোধের কবলে পড়বে। কর্মীরা প্রস্তুত হও…”

টিপু সিআরবি জোড়া খুনের মামলা এবং ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর খুনের মামলার আসামি।

হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর  বলেন, অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে ভাংচুরের অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে।

মামলার বিষয়ে এর বেশি কোনো তথ্য দিতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।

মামলার বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কামরুল হুদার বক্তব্য জানতে একাধিকবার ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

গত মঙ্গলবার দুপুরে এক শিক্ষকের অপসারণের দাবি জানিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাত করে আলমগীর টিপু বেরিয়ে আসার পর উপাচার্যের কার্যালয়ে ভাংচুর চালানো হয়।

আগের দিন সোমবার বর্ধিত করের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারী করদাতা সুরক্ষা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক আমির উদ্দিনের অপসারণ দাবি করে টিপুর অনুসারীরা।

গত ৫ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ কার্যালয়ে ১০-১৫ জন যুবক নিজেদের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী দাবি করে ‘অস্ত্র ঠেকিয়ে’ প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তাকে আন্দোলন থেকে সরে যাওয়ার হুমকি দেয় বলে দাবি আমির উদ্দিনের।

ওই ঘটনায় সেই রাতে হাটহাজারী থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে গেলে ‘ছাত্রলীগ, আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী ও অস্ত্র’ এই তিনটি বিষয় বাদ দিয়ে জিডি নেওয়া হয় বলেও অভিযোগ করেন আমির উদ্দিন।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

Share.

Leave A Reply