চুয়েটে ভর্তি শুরু ২২ নভেম্বর

0

 

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে লেভেল-১ স্নাতক কোর্সে ০১/১১/২০১৭ তারিখে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষার ফল গতকাল ১০ নভেম্বর সন্ধ্যায় প্রকাশ করা হয়েছে।

মেধাতালিকা থেকে ভর্তি শুরু হবে (ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ, স্থাপত্য বিভাগ এবং উপজাতীয় ও রাখাইন সম্প্রদায়ের জন্য); ২২/১১/২০১৭ খ্রিঃ বুধবার সকাল ৯:৩০ ঘটিকা হতে বিকাল ৪:০০ ঘটিকা পর্যন্ত। আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ১ম অপেক্ষমান তালিকা (ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ ও স্থাপত্য বিভাগ) প্রকাশ, ২৩/১১/২০১৭  বৃহস্পতিবার বিকাল ৫:০০ ঘটিকায়।

উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের তালিকা (ক) মেধাতালিকা (Merit List) ) ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ (মেধাক্রমঃ ১ থেকে ৬৭০ পর্যন্ত) (খ) স্থাপত্য বিভাগের মেধাতালিকা (মেধাক্রম ঃ ১ থেকে ৩০ পর্যন্ত) (গ) পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য জেলার উপজাতীয় সম্প্রদায় এবং রাখাইন সম্প্রদায়ের জন্য সংরক্ষিত আসনের মেধা তালিকা (মেধাক্রম ঃ ১ থেকে ৯ পর্যন্ত) (ঘ) অপেক্ষমান তালিকা- ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমুহের জন্য ভর্তিযোগ্য প্রার্থীদের মধ্য হতে মেধাক্রমানুযায়ী ৬৭১ হতে ৩০০০ পর্যন্ত (সংযুক্ত ঃ পৃষ্ঠা নং- ১ হতে ৭৪ পর্যন্ত) (ঙ) অপেক্ষমান তালিকা- স্থাপত্য বিভাগের মেধাক্রম ৩১ থেকে ১১৯ পর্যন্ত প্রকাশ করা হয়েছে। উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের মধ্য থেকে বভিন্নি বিভাগে মেধাক্রম অনুযায়ী পছন্দের ভিত্তিতে নির্ধারিত অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে। নির্ধারিত দিনে নির্ধারিত সময়ে ভর্তির নিমিত্তে সাক্ষাতকারের জন্য উপস্থিত না হলে ভর্তির যোগ্যতা বাতিল হবে। মেধাতালিকায় আসন খালি হলে অপেক্ষমান তালিকা হতে শুধুমাত্র মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তির সুযোগ পাবে। অনিবার্য কারণবশতঃ ভর্তি কমিটি ভর্তির তারিখসমূহ পরিবর্তন করলে তা অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট এবং বিজ্ঞপ্তি ফলকের মাধ্যমে প্রচারিত হবে। ভর্তি সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য অফিস চলাকালীন সময়ে ০১৭৫৯১২৩১৪৮ ও ০১৭৫৯১২৩১০৩ এবং ০৩১-৭১৪৯১১ নম্বরে যোগাযোগ করা যাবে।
আসন খালি থাকা সাপেক্ষে অপেক্ষমান তালিকা হতে মেধাক্রম অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে ওরিয়েন্টেশনের দিন পর্যন্ত ভর্তি প্রক্রিয়া চলবে এবং তা বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েব সাইট থেকে জানা যাবে। ওরিয়েন্টেশন এবং ক্লাশ শুরুর তারিখ ও সময় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি মারফত জানানো হবে। ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েব সাইট http://www.cuet.ac.bd/admission এ পাওয়া যাবে।

ভর্তির সময় প্রার্থীকে অবশ্যই নিম্নবর্ণিত দলিলাদি নিরীক্ষা কমিটির নিকট দাখিল করতে হবে ঃ
(১) ভর্তির দিন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রদত্ত ছবিসহ এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড এবং অত্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক ইস্যুকৃত প্রবেশপত্র (২) মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষা পাশের মূল সনদ পত্র এবং গ্রেডশীটের মূল কপি (৩) উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষার গ্রেডশীটের মূল কপি (৪) উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষা পাশের মূল/সাময়িক সনদ/শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত প্রশংসাপত্রের মূলকপি (৫) সদ্যতোলা ০২ (দুই) কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত রঙিন ছবি (৬) উপরে বর্ণিত প্রতিটি মূল/সাময়িক সনদপত্রের এবং মার্কশীট/গ্রেডশীট এর আরও একটি করে ফটোকপি জমা দিতে হবে। (৭) ভর্তি নির্দেশিকার ১৬ নং অনুচ্ছেদ মতে ইষড়ড়ফ এৎড়ঁঢ়, ঈযবংঃ ঢ-ৎধু ইত্যাদির মেডিক্যাল টেস্ট রিপোর্ট (প্রতিষ্ঠিত ডায়াগনস্টিক সেন্টার হতে) ভর্তির দিন সঙ্গে আনতে হবে, প্রয়োজনবোধে চুয়েট মেডিক্যাল সেন্টারে অথবা ভর্তির নিমিত্তে গঠিত চিকিৎসা বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চাহিত ডায়াগনস্টিক সেন্টার হতে প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল টেস্ট রিপোর্ট দাখিল করতে হবে। মেডিকেল টেস্টের দিন চশমা ব্যবহারকারী ছাত্র-ছাত্রীদের অবশ্যই চশমা সঙ্গে রাখতে হবে।

{{উপরোক্ত দলিলাদি ছাড়াও রাখাইন ও উপজাতীয় প্রার্থীদের বাংলাদেশের স্থায়ী বাসিন্দা এবং উপজাতীয়তার প্রমান স্বরূপ ১) যে কলেজ থেকে পাস করেছে সে কলেজের অধ্যক্ষ, ২) স্থানীয় পৌরসভা/জেলা পরিষদ/ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান এবং ৩) উপজাতীয় মোড়লের নিকট থেকে মোট ৩টি মূল সার্টিফিকেট দাখিল করতে হবে।

নিরীক্ষা বোর্ড কর্তৃক নিরীক্ষাকৃত প্রার্থীগণকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চীফ মেডিক্যাল অফিসার-এর সমন্বয়ে গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড দ্বারা স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে নির্ধারিত ভর্তি ফি জমা দিয়ে ভর্তি হতে হবে। ভর্তির জন্য নির্ধারিত ফি’র পরিমান মোট ১১,০০০/- (এগার হাজার) টাকা।

ক্লাশ শুরুর ০৩ (তিন) কর্মদিবস পূর্বে কোন ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি বাতিল করতে চাইলে ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা এবং উক্ত সময়ের পরে যে কোন সময় ভর্তি বাতিলের জন্য ৭,০০০/- (সাত হাজার) টাকা ফি প্রদান করে ভর্তি বাতিল করা যাবে।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

 

Share.

Leave A Reply