‘এসি রুমের রাজনীতি নিয়েছিলে তৃণমূলে’

0

‘একটু উদ্যোগ, একটু চেষ্টা, এনে দেবে সফলতা’ তারেক রহমান তার এই শ্লোগান  মেধা,প্রজ্ঞা, কর্মবীরত্ব, ত্যাগ, ভিশনারী বক্তব্য, রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে সমাজে ব্যাপক সাড়া জাগাতে পেরেছেন। যা এর আগে একমাত্র শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানই পেরেছিলেন।

তারেক রহমান প্রচলিত রাজনীতি বদলাতে চেয়েছিলেন। রাজধানীর শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ড্রয়িংরুমের রাজনীতিকে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন তৃণমূলে। তিনি ১৬ কোটি মানুষকে উন্নয়নের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করতে চেয়েছিলেন। তিনি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন ৬৮ হাজার গ্রাম বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। তাই তিনি তৃণমূল জনগোষ্ঠীকে রাজনীতি এবং অধিকার সচেতন করে তৃণমূল জনগণের ক্ষমতায়নের মধ্যে দিয়ে সৃজনশীল, সহনশীল ও রাজনৈতিক ঐক্যমতের পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রনীতি পরিচালনার ভিত্তিতে দারিদ্রতা ও নিরক্ষরতা মুক্ত করে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের মাধ্যমে একটি স্বনির্ভর বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে এক যুগান্তকারী সাংগঠনিক কর্মসূচী নিয়ে রাজধানী ছেড়ে ছুটে গেছেন গ্রাম-বাংলার সাধারন মানুষ ও তৃণমূল কর্মীদের মাঝে।

২০শে নভেম্বর চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রদলের উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের ৫৩ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতির বক্ত্যবে এসব কথা বলেন বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরাম সুপ্রিম কোর্ট শাখার যুগ্ম-সম্পাদক ব্যারিস্টার মীর মাহাম্মদ হেলাল উদ্দীন।

ব্যারীষ্টার মীর হেলাল আরো বলেন, তারেক রহমান মাটি ও মানুষকে জাগিয়ে বাংলাদেশকে আপন সম্পদে স্বনির্ভর করা, আধুনিক ও শক্তিশালী রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশকে দাঁড় করানো, প্রান্তিক মানুষকে সামনে রেখে রাজনীতিকে বিকশিত করা, গণতন্ত্রের মূলধারাকে সজীব-সচল করা, সবই তার ঘোষিত স্বপ্ন যা শহীদ জিয়ার স্বপ্নেরই এক সময়োচিত সমপ্রসারণ। বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব এবং এর সুঠাম-স্বনির্ভর অভিযাত্রার সঙ্গে জিয়া পরিবারের যে আত্মিক বন্ধন, তার ধারাবাহিকতায় তারেক রহমান আজ অজেয় উত্তরাধিকারে স্থিত হয়েছেন। কৃষির উন্নয়ন এবং একে ভিত্তি করে শিল্পের বিকাশ সঙ্গে শিক্ষা ব্যবস্থা, প্রযুক্তির উন্নয়ন, কৃষকের জন্য ভালো বীজ দেওয়া, গরিবের সঙ্গে হাঁস-মুরগির প্রতিপালনসহ অসংখ্য কাজে তিনি হাত বাড়িয়েছেন আগ্রহ ভরে। গ্রামে গ্রামে জরিপ চালিয়েছেন কত মাছ, ফল, ধান হয় প্রতি গ্রামে। সাগরে ও নদীতে জেগে ওঠা পলিকে সোনা বানানোর রূপকল্পও তাঁর ভাবনার বাইরে নয়। ‘একটু উদ্যোগ, একটু চেষ্টা, এনে দেবে সফলতা’ এই কর্তব্যজ্ঞানকে ছড়িয়ে তিনি বোঝাতে চেয়েছেন প্রতিটি জনপদে মানবিকতার বিকাশ হোক, সবাই হয়ে উঠুক সবার জন্য।

উত্তর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি জাহিদুল আফছার জুয়েলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুল আলম জনির সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার মীর হেলাল । অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ,মোরশেদ হাজারী, যুগ্নসম্পাদক ওমর ফারুক চৌধুরী ডিউক, তকিবুল হাসান চৌধুরী তকি, সহ-সম্পাদক আবু সাঈদ, মিরসরাই উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সরোয়ার হোসেন রুবেল, হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক নুরুল কবির তালুকদার, মিরসরাই উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসাইন, হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব ওহিদুল ইসলাম টিটু, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র ছাত্রনেতা মঈনুল্লাহ উজ্জল, রাবিদুল ইসলাম মিটু, গিয়াস উদ্দীন মাহমুদ, আলাউদ্দীন জনি, শাহরিয়ার সজীব, শরীফুল ইসলাম, কামরুল হাসান, মামুনুর রশীদ মামুন, মোজাফ্ফর হোসেন, বিপুল খান, কামরুদ্দীন অপু,ওসমান তাহের সম্রাট, সাইফুল আমিন, ফটিকছড়ি কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক আবদুল্লাহ আল মামুন, সদস্য সচিব আল মামুন, সন্দ্বীপ এবি কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক আকরাম খান মুকুল, সদস্য সচিব আবদুর রহিম রাহি, মোস্তাফিজুর রহমান ডিগ্রী কলেজের আহবায়ক এনামুল হাসান শিমুল, সদস্য সচিব ইয়াছিন রিয়াদ,সাউদ সন্দ্বীপ ডিগ্রী কলেজের আহবায়ক অনিক রাব্বানী, কুয়াইশ সরকারী কলেজ ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন আপেল, মিরসরাই ডিগ্রী কলেজ ছাত্রদলের সদস্য সচিব এমরান আনোয়ার, মিরসরাই উপজেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি হোসাইন মোঃ মাসুম, হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্নআহবায়ক আলাউদ্দীন তালুকদার, কামরুদ্দীন নাহিদ, আলাউদ্দীন পারভেজ, মন্জুর মোরশেদ মন্জু, মোঃ হাসান, মোঃ এমরান, গিয়াস উদ্দিন রিচার্ড, সৈয়দ মীর মোঃ নাজ্জাশী আলাভী, জাহেদুল ইসলাম লিমন, হান্নান তালুকদার, সালমান সাদী রাশেদ, মোঃ দেলোয়ার, বাবু সালাম চৌধুরী সহ অসংখ্য ছাত্রদলের নেতৃবন্দ উপস্থিত ছিলেন ।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

Share.

Leave A Reply