ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষ্যে সারাদেশে ৩ লাখ মাহফিল হচ্ছে

0

পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে দেশে কমপক্ষে ৩ লাখ মাহফিল হচ্ছে উল্লেখ করে বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেছেন, এসব মাহফিল বাংলাদেশে জনমত গঠনে বড় শক্তি। মাহফিল থেকেই দেশ-জাতির আশা আকাক্সক্ষা চিন্তা-চেতনার ভিত্তিতে জনমত গঠিত হয়। আর লাখ লাখ মাহফিলের উদ্যোক্তারা হলেন জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতাকর্মী ও সমর্থক।

তিনি  বুধবার (২৯ নভেম্বর) বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর ২নং গেইটস্থ জিন্নুরাইন কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত এ সম্মেলন মিরসরাই থেকে টেকনাফ পর্যন্ত বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৫ জেলার মাদরাসা শিক্ষকদের বর্ণাঢ্য এক মিলন মেলায় পরিণত হয়।

ইনকিলাব সম্পাদক বলেন, মূল্যবোধ ও নৈতিক সমাজ ব্যবস্থা চালু রাখতে এদেশের মাদরাসা শিক্ষক ও আলেম-মাশায়েখগণ কাজ করে যাচ্ছেন। জঙ্গিবাদ ও মাদকমুক্ত সমাজ কায়েমে তাদের ভূমিকা অপরিসীম। আগামীদিনে একটি সুন্দর সমাজ তথা ইসলামী সমাজ কায়েমে আলেমদের এগিয়ে আসতে হবে।

মাদরাসা শিক্ষা কারিকুলাম তথা পাঠ্য বই নিয়ে কোন গবেষণা না করার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, পাঠ্য বইয়ে কোন পরিবর্তন বা পরিমার্জন করতে হলে জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সাথে আলোচনার ভিত্তিতে তা করতে হবে। কোন কিছু চাপিয়ে দেওয়া যাবেন না। চলমান বিশ্বরাজনীতির প্রেক্ষাপটে আগামী দিনের নেতৃত্ব তৈরীতে মাদরাসা শিক্ষকদের আরও বেশি গবেষণা ও অধ্যয়নের প্রতি গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, জীবন মান উন্নয়নের সাথে সাথে শিক্ষকদের মানও বাড়াতে হবে। মাদরাসা শিক্ষার উন্নয়নে, ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়নে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের বলিষ্ঠ ভূমিকার প্রশংসা করে তিনি বলেন, তার হাত দিয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় যে প্রকল্প অনুমোদন পায় সেটিই অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ পায়।

সর্বস্তরের মাদারাসা শিক্ষক কর্মচারীদের চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে দেশব্যাপী জনমত গঠনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত এই সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন জমিয়াতের মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজী। তিনি বলেন, শিক্ষক কর্মচারীদের জাতীয়করণের এ দাবিও জমিয়াতুল মোদারের্ছীনের সভাপতি এ এম এম বাহাউদ্দীনের দূরদর্শী নেতৃত্বে আদায় করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাবান্ধব এবং মাদরাসা শিক্ষার প্রতি তিনি বিশেষভঅবে আন্তরিক।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিন্সিপাল মাওলানা হাসান মাসুদ, ফেনী জেলা জমিয়াতের সভাপতি মাওলানা হোসাইন আহমেদ ও কক্সবাজার জেলা জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা কামাল উদ্দিন। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম জেলা জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা মোখতার আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহানগর জমিয়াতের সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা কাযী আবুল বয়ান হাশেমী। মহানগর সেক্রেটারী প্রিন্সিপাল মাওলানা মোহাম্মদ ইসমাইলের সঞ্চালনায় সম্মেলনে কাগতিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল পীরে কামেল আল্লামা ছৈয়দ মুনির উল্লাহ আহমদ (ম.জি.আ.)সহ এ অঞ্চলের শীর্ষ আলেম-মাশায়েখ, বিভিন্ন মাদরাসার প্রিন্সিপালগণ উপস্থিত ছিলেন।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন সোবহানিয়া আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল আল্লামা মুফতি হারুনুর রশিদ, দারুল উলুম আলিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহবুবুল আলম সিদ্দিকী, প্রিন্সিপাল মাওলানা বদিউল আলম রেজভী, খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি আ ন ম আবদুল করিম, বান্দরবান জেলার সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা জাফর উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ সাদাত উল্লাহ, প্রিন্সিপাল আহমদ হোসাইন আলকাদেরী, মাওলানা শাহাদাত হোসাইন, উপাধ্যক্ষ ড. লিয়াকত আলী, মাওলানা মহিউদ্দিন হাশেমী, প্রিন্সিপাল মাওলানা সাজেদ উল্লাহ আজিজি, অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ ইলিয়াছ, প্রিন্সিপাল মাওলানা মোঃ একরাম হোসাইন, প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা আবু জাফর, প্রিন্সিপাল নজরুল ইসলাম, প্রিন্সিপাল নুরুল আলম প্রমুখ। সম্মেলনের শেষ পর্যায়ে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহবুবুল আলম সিদ্দিকী। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মাদরাসা প্রধান, শিক্ষক-কর্মচারীদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে এ সম্মেলন প্রাণের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

Share.

Leave A Reply