জনগণের অবিচ্ছেদ্য অংশ সেনাবাহিনী-শেখ হাসিনা

0

 

হাকিম মোল্লা: দেশের আপদকালীন সময়ে সেনাবাহিনীর ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাম্প্রতিক রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলা, দুর্গম পার্বত্য এলাকায় সড়ক ও অবকাঠামো, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মহাসড়ক, সেতু ও ফ্লাইওভার নির্মাণ এবং ভোটার তালিকা ও মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট তৈরিতেও সেনাবাহিনী দক্ষতা দেখিয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারীতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে সেনাবাহিনীর এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

   তিনবছর মেয়াদী প্রশিক্ষণ শেষে ল্যাফটেনেন্ট হিসেবে কমিশনপ্রাপ্ত অফিসারদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তোমাদের মনে রাখতে হবে, তোমরা এদেশের সন্তান। জনগণের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তোমাদের সকলকেই সাধারণ মানুষের হাসিকান্না, সুখদু:খের অবিচ্ছেদ্য অংশীদার হতে হবে।

তিনি বলেন, দেশ-বিদেশে দায়িত্ব পালনে দক্ষতা ও পেশাদারিত্ব দেখিয়ে আমাদের সেনাবাহিনী সব মহলের প্রশংসা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এই সুনাম আরও এগিয়ে নিতে হবে। বিশ্বের যে কোন প্রান্তের মানুষ শান্তি আর সমৃদ্ধির প্রতীক হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে জানবে-এটিই আমার প্রত্যাশা।

সেনাবাহিনীর ৭৫তম বিএম দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের অফিসার ক্যাডেটদের কমিশনপ্রাপ্তি উপলক্ষে আয়োজিত রাষ্ট্রপতি প্যারেড পরিদর্শনের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী তাদের অভিবাদন গ্রহণ করেন।

এ কুচকাওয়াজের মাধ্যমে মোট ৩৪৩ জন বাংলাদেশি, ০৫ জন ফিলিস্তিন এবং ০২ জন শ্রীলংকান ক্যাডেটসহ সর্বমোট ৩৫০ জন ক্যাডেট কমিশন লাভ করেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশনপ্রাপ্ত ক্যাডেটদের মধ্যে ৭৫তম বিএমএ দীর্ঘ মেয়াদি কোর্সে ২৯৩ জন পুরুষ ও ৫০ জন মহিলা ক্যাডেট রয়েছেন।

ব্যাটালিয়ন সিনিয়র আন্ডার অফিসার সাদমানুর রহমান ৭৫তম বিএমএ দীর্ঘ মেয়াদি কোর্সে সেরা চৌকস ক্যাডেট বিবেচিত হন এবং গৌরবমন্ডিত ‘সোর্ড অব অনার’ লাভ করেন। একই সাথে তিনি সামরিক বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্বের জন্য ‘সেনাবাহিনী প্রধানের স্বর্ণপদক’ লাভ করেন। পরে ক্যাডেটগণ আনুষ্ঠানিক শপথ গ্রহণ করেন এবং পিতা-মাতা ও অভিভাবকগণ নবীন অফিসারদের র‌্যাংক-ব্যাজ পরিয়ে দেন।

রাষ্ট্রপতি প্যারেড শেষে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে ১২০০ জন ক্যাডেট এর জন্য নির্মিত আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ডরমেটরী, অফিসারদের জন্য ৫২টি ফ্ল্যাট সম্বলিত ১৪ তলা আবাসিক ভবন এবং ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টাল সেন্টারের জন্য আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত একাডেমিক কমপ্লেক্স ভবন এর উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রীপরিষদ সদস্যবর্গ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ (Admiral Nizamuddin Ahmed) ও বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল আবু এসরার (Air Chief Marshal Abu Esrar) , সংসদ সদস্যবর্গ, ঢাকাস্থ বৈদেশিক মিশনের কূটনীতিকগণ, উচ্চপদস্থ সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ এবং সদ্য কমিশনপ্রাপ্ত অফিসারদের পিতা-মাতা ও অভিভাবকগণ উপস্থিত থেকে এ বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ প্রত্যক্ষ করেন।

সিটিজিনিউজ/এইচএম 

 

Share.

Leave A Reply