জেরুজালেম ইস্যু নিয়ে অার্থিক বরাদ্দ কমানোর সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রের

0 24

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ::     তিন ধর্মের অনুসারীদের কাছে পবিত্র ভূমি জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণার মার্কিন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে জাতিসংঘের বেশির ভাগ সদস্য দেশ। এর জের ধরে পূর্ব হুঁশিয়ারি অনুযায়ী ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে জাতিসংঘে আর্থিক বরাদ্দ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় সময় রোববার রাতে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন দূত নিকি হ্যালে ঘোষণা দেন। জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টিফেনি ডুজেরিক মার্কিন বরাদ্দ কমানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

হ্যালের বরাত দিয়ে সিএনএন জানায়, আগামী অর্থবছরে জাতিসংঘের বাজেটে ২৮ কোটি ৫০ লাখ মার্কিন ডলার বরাদ্দ কম দেবে যুক্তরাষ্ট্র। ২০১৮-২০১৯ সালে জাতিসংঘে ৫৫০ কোটি ডলার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্য সদস্য দেশগুলোর তুলনায় সংস্থাটিতে সবচেয়ে বেশি আর্থিক সহায়তা করে থাকে যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে জাতিসংঘের মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘জাতিসংঘকে মার্কিনিদের উদারতার সুযোগ আর নিতে দেওয়া হবে না।’

বিভিন্ন খাতে বরাদ্দ কমানো হলেও লিবিয়া, ইয়েমেন, কলোম্বিয়া, আফগানিস্তান, ইরাক ও মিয়ানমার সংক্রান্ত বিষয়ে বরাদ্দ জারি থাকবে বলা জানানো হয় যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে। গেল ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এর পরই এ সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান নেয় তুরস্ক, সৌদি আরব, ইরান, জর্ডানসহ বিশের বেশির ভাগ দেশ। নিজেদের মাতৃভূমি রক্ষার দাবিতে রাস্তায় নামে ফিলিস্তিনের মুসলিম ও খ্রিষ্টানরাও। এ সময় ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে হতাহত হন অনেকেই।

সর্বশেষ ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে জাতিসংঘে প্রস্তাবনা আনে মিসর। তবে ওই প্রস্তাবনায় যুক্তরাষ্ট্র ভেটো দিলে বাতিল ঘোষণা করা হয়। এর পর সর্বশেষ জেরুজালেম ইস্যুতে জাতিসংঘে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। ভোটে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতির বিপক্ষে ভোট দেয় ১২৮ সদস্য দেশ।

নিরপেক্ষ অবস্থান নেয় ৩৫টি দেশ। আর ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের পক্ষে ভোট দেয় সাতটি দেশ। এর পর পরই যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বরাদ্দ কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। তবে জাতিসংঘে ভোট নিজেদের বিপক্ষে গেলে বরাদ্দ কমানো হবে বলে সতর্ক করে যুক্তরাষ্ট্র।

সে সময় ট্রাম্প বলেন, ‘তাদের আমাদের বিপক্ষে ভোট দিতে দাও। তাহলে অনেক অর্থ বাঁচাতে পারব। আমরা থোড়াই কিছু কেয়ার করি।’ জেরুজালেম পবিত্র ভূমি হিসেবে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন উভয় দেশেই গুরুত্বপূর্ণ। এর দখল ও নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই দেশের দ্বন্দ্ব বহু পুরোনো।

ইসরায়েল সব সময়ই জেরুজালেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে দাবি করে আসছে। পাশাপাশি পূর্ব জেরুজালেম ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হবে বলে দেশটির নেতারা বলে আসছেন।

১৯৬৭ সালে পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরায়েল। পরে ১৯৮০ সালে তারা অঞ্চলটি অধিগ্রহণ করে নেয় এবং ইসরায়েলের অংশ হিসেবে ঘোষণা করে।
সিটিজিনিউজ / এসএ

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.