‘হুমকিধমকিতে শিপ ব্রেকার্স এসোসিয়েশনের এজিএম স্থগিত’

0
20

সীতাকুণ্ডের সাগর উপকূলে গড়ে ওঠা ভ্রাম্যমাণ লৌহ খনিজ সম্পদ নামে জাহাজ ভাঙা শিল্পের মাদার সংগঠন বাংলাদেশ শিপ ব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএসবিএ) বার্ষিক সাধারণ সভাও অবশেষে হচ্ছে না।

উচ্চ আদালতের নির্দেশে নির্বাচন স্থগিতের পর বাংলাদেশ শিপ ব্রেকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএসবিএ) বার্ষিক সাধারণ সভাও ভন্ডুল হয়ে গেছে। সভাটি অনেকটা গোপনে আহ্বান করার অভিযোগ উঠেছিল।

রোববার (৩১ ডিসেম্বর) নগরীর রেডিসন ব্লু হোটেলে এই সভা হওয়ার কথা ছিল।

সংগঠনের মধ্যে ‍অভ্যন্তরীণ মতবিরোধের কারণে এবং একাংশের তীব্র প্রতিবাদের মুখে বর্তমান নেতৃত্ব বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানতে চাইলে বিএসবিএ সভাপতি আবু তাহের বলেন, বিভিন্ন জায়গা থেকে হুমকিধমকি পাচ্ছিলাম। এজন্য স্থগিত করেছি।

বিএসবিএ’র সচিব এম সিদ্দিকী  বলেন, সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে কিছু ভুল বোঝাবুঝি আছে। সেজন্য বার্ষিক সাধারণ সভা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

গত ৭ নভেম্বর বিএসবিএ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। ওই নির্বাচনে আগামী দুই বছরের জন্য কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হওয়ার কথা ছিল ১৫২ জন ভোটারের ভোটে।

তবে এর আগেই গত ৩১ অক্টোবর ইয়ার্ড মালিক এস এম আল নোমানের করা একটি রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে নির্বাচন স্থগিতের আদেশ দেন হাইকোর্ট। কিন্তু আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে নির্বাচনের আয়োজন করায় সদস্যদের বড় অংশের প্রতিবাদের মুখে সেটি ভন্ডুল হয়ে যায়।

এরপর আবারো বার্ষিক সাধারণ সভার আয়োজন করা হয়। গত ১৭ ডিসেম্বর বিএসবিএ সচিব ৩৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভার নোটিশ জারি করেন।

এরপর রিট আবেদনকারীর পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো.মিজানুর রহমান গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানান, নির্বাচন সংক্রান্ত রিটটি এখনো বিচারাধীন আছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উচ্চপর্যায়ের একটি টিম বিষয়টি তদন্ত করছে।

এই অবস্থায় এজিএমসহ যে কোন ধরনের সভা-সমাবেশ থেকে বিএসবিএ নেতৃত্বকে বিরত থাকার অনুরোধ করা হয়।

গোপনে সভা আহ্বানের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএসবিএ সভাপতি আবু তাহের বলেন, গোপনে কিছুই করিনি। নিয়ম অনুযায়ী দুই সপ্তাহ আগে নোটিশ দিয়েছি। আর এজিএম এর বিষয়ে ‍হাইকোর্টের কোন নিষেধাজ্ঞাও নেই।

সিটিজিনিউজ/এইচএম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here