চমেকের ওয়ার্ডবয় ও ভাসমান আয়াসহ তিন জনের যাবজ্জীবন

0
25

শিশু অপহণের দায়ে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত এক ওয়ার্ড বয়সহ ৩ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

চার বছরের এক শিশুকে অপহরণের অভিযোগে ৮ বছর আগে দায়ের করা একটি মামলায় এ রায় ঘোষণা করা হয়।রায়ে একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। খালাস দেওয়া হয়েছে একজনকে।

রোববার (১৪ জানুয়ারি) নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক মো.মোতাহির আলী এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- হারাধন নাথ (৫৮), শেফালী বেগম (৪৫) ও আবদুল আজিজ (৫৪)। এরমধ্যে হারাধন ও শেফালী বেগম পলাতক রয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় আবদুল আজিজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওয়ার্ড বয় হিসেবে কর্মরত| একই মামলার আসামি শফিউল আজমকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

ট্রাইব্যুনালের পিপি এম এ নাসের জানান, আসামিদের প্রত্যেককে অপহরণের দায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৭ ও ৭/৩০ ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা দিতে না পারলে আরও ৬ মাস কারাভোগ করতে হবে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ছেলের সঙ্গে নাস্তা করার কথা বলে ২০০৯ সালের ১৫ জানুয়ারি বিকেলে ৪ বছরের শিশু রাকিব চৌধুরীকে নিয়ে যায় হারাধন। চমেক হাসপাতালের সামনে ভাসমান আয়া শেফালী বেগমের কাছে বিক্রি করে দেয়। আবদুল আজিজের সাথে মামলার বাদি মিসবাহুল ইসলামের পরিচয় ছিল। সেই সূত্র ধরে আসামিরা যোগসাজশে ওই শিশুকে অপহরণ করে।

এ ঘটনায় ১৭ জানুয়ারি নগরীর বায়েজিদ থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ২০০৯ সালের ১৫ এপ্রিল অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। এই বছরের ৩ নভেম্বর অভিযোগ গঠনের পর রাষ্ট্রপক্ষ ১৯ জন সাক্ষীর মধ্যে ৬ জনকে আদালতের সামনে উপস্থাপন করে।

সিটিজিনিউজ/এইচএম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here