স্বামীর বন্ধুর লালসার শিকার পোশাক শ্রমিক

0
68

বোয়ালখালী প্রতিনিধি : বোয়ালখালীতে ধর্ষণের ৪মাস ১১দিন পর আদালতে মামলা দায়ের করেছে ২২ বছর বয়সী এক পোশাক শ্রমিক। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষার সম্পন্ন করার জন্য বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নিদের্শ দিয়েছেন।

মামলার এহাজার সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টার দিকে স্বামীর বন্ধুর লালসার শিকর হন ওই পোশাক শ্রমিক। ধর্ষকের ভয়ে বিষয়টি এতদিন গোপন রাখলেও চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এ মামলা দায়ের করেন।

বাদীর ডাক্তারি পরীক্ষার সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গত ১ ফেব্রুয়ারি আদালতের একটি নির্দেশনা পেয়েছেন জানিয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিমাংশু কুমার দাস রানা বলেন, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে।

অভিযুক্ত নুরুল হক টিপু (২১) উপজেলার চরখিজিরপুর আলী চৌধুরীর বাড়ীর কবির আহমদের ছেলে। সে পেশায় একজন গাড়ী চালক। মামলার বাদী বোয়ালখালী উপজেলার পূর্ব কালুরঘাট এলাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন।

তিনি জানান, ছোট বেলায় বাবা মারা যাওয়ায় মায়ের অন্যত্র বিয়ে হয়ে যাওয়ায় জীবিকার তাগিদে পোশাক কারখানায় চাকুরি নেন।

২০১৬ সালের ৮ জানুয়ারি পশ্চিম কধুরখীল গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের সাথে বিয়ে হয় তার। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতে থাকে সাদ্দাম। গত ২০১৭ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে মারধর করে এক কাপড়ে তাকে ঘর থেকে বের করে দেয়। তাই রাতে যাওয়ার মতো কোন জায়গা না থাকায় স্থানীয় একটি ভাড়া বাসায় আশ্রয় নেন তিনি। পরদিন ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টার দিকে ভাড়াবাসা দেখতে আসেন তাঁর স্বামীর বন্ধু টিপু। এসময় ঘরের ভেতর ঢুকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। স্বামীর বন্ধুর লালসার শিকার ওই পোশাক শ্রমিকের শোর চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে টিপুকে আটক করে। পরে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করলে তাকে ছেড়ে দেয় স্থানীয়রা। পরবর্তীতে ২৪ জানুয়ারি কালুরঘাট বাদামতল এলাকায় টিপু প্রাণনাশের হুমকী প্রদান করে ওই পোশক শ্রমিককে।

সিটিজিনিউজ/এইচএম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here