বিদেশে বিভিন্ন মিশনে গণহত্যা দিবস

74
 প্রবাস ডেস্ক : |  শুক্রবার, মার্চ ২৬, ২০২১ |  ৬:৫৩ অপরাহ্ণ

যথাযথ মর্যদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় সিঙ্গাপুর, স্টকহোম, টোকিও ও ভিয়েতনামসহ বিদেশে বিভন্ন মিশনে গণহত্যা দিবস পলিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ হাইকমিশনের পক্ষ থেকে নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সিঙ্গাপুর

Advertisement

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের কালরাতে নিহত শহীদদের স্মরণে জাতীয় পতাকা রাখা হয় অর্ধনমিত, বিশেষ অনুষ্ঠান, বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বাণী পড়ে শোনানো হয়। এছাড়া নতুন প্রজন্মের কাছে মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরার উপরে বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করা হয়। হাইকমিশনার মো. তৌহিদুল ইসলাম তার বক্তব্যের শুরুতেই সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

তিনি ব্যথাতুর চিত্তে স্মরণ করেন ২৫ মার্চের কালরাতে নিহত শহীদদের যাদের সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের পথ বেঁয়ে অর্জিত হয়েছিলো বাংলাদেশের স্বাধীনতা। মানব ইতিহাসে বিভিন্ন সময়ে সংঘটিত গণহত্যাকে মানবতা বিরোধী অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি এর তীব্র নিন্দা জানান এবং এরূপ অপরাধ সংঘটনের সাথে জড়িতদের আইনের মুখোমুখি দাঁড় করানোর বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ করেন।

স্টকহোম

যথাযথ মর্যাদায় বাংলাদেশ দূতাবাস স্টকহোমে গণহত্যা দিবস-২০২১ পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে ২৫ মার্চ বিকালে অনলাইনে জুম প্লাটফর্মে আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সুইডেন, নরওয়ে এবং ফিনল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেশি কমিউনিটির সদস্যরা অনলাইনে এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দূতাবাস প্রাঙ্গণ থেকে যোগদান করেন।

বিদেশে বিভিন্ন মিশনে গণহত্যা দিবস

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ শেষে দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ও অনলাইনে অংশগ্রহণকারী অতিথিদের সমবেত শুদ্ধ স্বরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে শহীদদের আত্মত্যাগের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বানী পাঠ করেন দূতাবাস কর্মকর্তাগণ। এরপর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় ভাগে অনলাইনে উপস্থিত সুইডেন, নরওয়ে এবং ফিনল্যান্ডে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে গণহত্যা দিবসের দিবসের ওপর আলোকপাত করে উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

টোকিও

জাপানের টোকিওস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস বৃহস্পতিবার যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের সাথে ‘গণহত্যা দিবস’ পালন করেছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয় কালো ব্যাচ ধারণ করে মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে। পরে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের শহীদ সদস্য, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে জীবন উৎসর্গকারী শহিদদের আত্মার মাগফিরাত এবং দেশের শান্তি ও অব্যাহত অগ্রগতি কামনা করে দোয়া (মোনাজাত) করা হয়। এছাড়া দিবসটি স্মরণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বানী পাঠ করা হয়।

বিদেশে বিভিন্ন মিশনে গণহত্যা দিবস

আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে নিহত বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল সদস্য এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের।

অনুষ্ঠানে গণহত্যা দিবসের উপর নির্মিত তথ্যচিত্র ‘একাত্তরের গণহত্যা ও বধ্যভূমি’ প্রদর্শন করা হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংক্ষিপ্ত পরিসরে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

ভিয়েতনাম

বাংলাদেশ দূতাবাস হ্যানয়, ভিয়েতনামে দিনটি স্মরণ করে বিশেষ প্রার্থনা, এক মিনিট নীরবতা পালন করে শোক প্রকাশ, রাষ্ট্রপতির বাণী, প্রধান মন্ত্রীর বাণী ও বিশেষ আলোচনা সভা ও একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়। আলোচনার প্রারম্ভে রাষ্ট্রদূত শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যার নেতৃত্ব ও দিক নির্দেশনায় ১৯৪৮ থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত সকল সংগ্রাম এবং দীর্ঘ ন’মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত হয় আমাদের মহান স্বাধীনতা। তিনি আরো স্মরণ করেন ২৫ মার্চ কালরাতের নৃশংস হত্যাকাণ্ডসহ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে নির্মম গণহত্যার শিকার সকল শহীদকে, জাতীয় চার নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক-সমর্থকসহ দেশের জনগণকে, যাঁদের অসামান্য অবদান আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা অর্জন করেছি স্বাধীনতা।

বিদেশে বিভিন্ন মিশনে গণহত্যা দিবস

আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত মিজ সামিনা নাজ তার বক্তব্যে ২৫ মার্চ গণহত্যায় হানাদার বাহিনীর নৃশংসতার চিত্র তুলে ধরেন। আলোচনা অনুষ্ঠানে দূতাবাসের কর্মকর্ত/কর্মচারীগণ এবং ভিয়েতনামী গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন এবং সর্বশেষে গণহত্যার উপর একটি বিশেষ প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

Advertisement