ধর্মীয় কোন বৈষম্য হয়নি রাখাইনে: মিয়ানমার সেনাপ্রধান।

0 44

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ::   মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং হেইং বলেছেন, রাখাইনে ধর্মের ভিত্তিতে কোনো বৈষম্য করা হয়নি। একইসঙ্গে দেশটির শান্তি প্রতিষ্ঠায় সেনাবাহিনী কাজ করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। সোমবার পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ কথা বলেছেন। খবর বিবিসির।

পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে সেনাপ্রধান মিন অং হেইংয়ের ওই বৈঠকের স্থায়িত্ব ছিল ১৫ মিনিট।পরে রাতে জেনারেল মিন ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেখানে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলেন, রাখাইন রাজ্যে কোনো ধর্মীয় বৈষম্য হয়নি বলে তিনি পোপকে আশ্বস্ত করেছেন। সেনাপ্রধানের অফিস থেকে বলা হয়েছে, জেনারেল মিন পোপকে জানিয়েছেন যে দেশটির সেনাবাহিনী রাখাইন অঞ্চলে শান্তি এবং স্থিতিশীলতা আনতে কাজ করে যাচ্ছে।

তবে এর জবাবে পোপ ফ্রান্সিস কি প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তা উল্লেখ করা হয়নি মিয়ানমারের পক্ষ থেকে। যদিও মিয়ানমার সফরে পোপকে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহার না করার আহ্বান জানিয়েছিলেন দেশটির কার্ডিনাল চার্লস মং বো।

বৌদ্ধ প্রধান দেশ মিয়ানমারে প্রথম কোনো পোপ হিসেবে সোমবার দেশটিতে পৌঁছেছেন পোপ ফ্রান্সিস। সফরের শুরুর দিনেই দেশটির সেনা প্রধানের সঙ্গে দেখা করেন পোপ। পোপ ফ্রান্সিস মিয়ানমারে পৌঁছলে হর্ষধ্বনির মাধ্যমে তাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানানো হয়।

ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা এমন এক সময়ে মিয়ানমার সফর করছেন যখন দেশটির সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলমানদের জাতিগত নিধনের অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখ্য, দেশটির সেনাবাহিনীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে গত তিন মাসে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

সিটিজিনিউজ/আই.এস

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.