দেশত্যাগের নিষেধাজ্ঞা মাথায় নিয়েই চার্টার্ড ফ্লাইটে দেশ ছাড়লেন আনভীর!

486
 নিজস্ব প্রতিবেদক |  শুক্রবার, এপ্রিল ৩০, ২০২১ |  ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ

আদালতের নিষেধাজ্ঞা মাথায় নিয়েই পরিবারসহ দেশ ছেড়েছেন মোসারাত জাহান (মুনিয়া) আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার একমাত্র আসামি সায়েম সোবহান আনভীর।

বৃহস্পতিবার রাতে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ও অভিবাসন পুলিশের একটি সূত্র এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

Advertisement

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান বলেন, বুধবার তাঁরা একটি বিশেষ ফ্লাইটের অনুমতি নিয়েছেন। আজ তাঁদের দেশ ছাড়ার কথা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে ফ্লাইটটি ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়ে দুবাইয়ের আল মাকতুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

চার্টার্ড ফ্লাইটের (ভাড়া করা বিমান) সদস্য ছিলেন আটজন। যাত্রী তালিকা অনুযায়ী দেশ ছেড়েছেন সায়েম সোবহান আনভীরের স্ত্রী সাবরিনা সোবহান, তাঁদের দুই সন্তান (অপ্রাপ্তবয়স্ক), ছোট ভাই সাফওয়ান সোবহানের স্ত্রী ইয়াশা সোবহান এবং তাঁদের মেয়ে ও দুই পরিবারের তিনজন গৃহকর্মী ডায়ানা হার্নানডেজ চাকানান্দো, মোহাম্মদ কাদের মীর ও হোসনে আরা খাতুন। এর আগে সায়েম সোবহান আনভীরের ছোট ভাই সাফওয়ান সোবহানও দেশ ছাড়েন।

যদিও বৃহস্পতিবার গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী সাংবাদিকদের জানান, অভিবাসন কর্তৃপক্ষের ডেটা বেজের তথ্য অনুযায়ী সায়েম সোবহান আনভীর দেশেই আছেন। তিনি দুটি পাসপোর্ট ব্যবহার করেন। কোনোটি ব্যবহার করেই দেশত্যাগের কোনো তথ্য নেই পুলিশের কাছে।

গত ২৬ এপ্রিল মামলা হওয়ার পর গত ২৭ এপ্রিল পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সায়েম সোবহান আনভীরের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন আদালত।

আদালতের নিষেধাজ্ঞার পরেও সায়েম সোবহান আনভীরের চার্টার্ড ফ্লাইটের বুধবার দেশত্যাগের খবরে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ ও নিহত মুনিয়ার পরিবার। কোর্টের নিষেধাজ্ঞার পরেও আনভীর কী ভাবে দেশ ত্যাগ করেন-এমন প্রশ্ন রেখেছেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৬ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যার পর গুলশান-২-এর ১২০ নম্বর রোডের ১৯ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান (মুনিয়া) নামের এক তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই তরুণীর বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। মামলায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধির ৩০৬ ধারায় বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহানকে মামলায় আসামি করা হয়। মামলা নম্বর-২৭। ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ নোমান মামলার এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৩০শে মে দিন ধার্য করেন। এর পরদিন পুলিশের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে সায়েম সোবহান আনভীরের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত।

জেইউএস/

Advertisement