রেলওয়ের দুই কোটি টাকা আত্মসাত মামলার তদন্তে দুদক

154
 নেজাম উদ্দিন সোহান |  মঙ্গলবার, মে ১১, ২০২১ |  ৩:২৪ অপরাহ্ণ

২ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বাংলাদেশ রেলওয়ে, চট্টগ্রামের জুনিয়র হিসাব কর্মকর্তা ফয়সাল মাহবুবের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা তফসিলভুক্ত করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। ফলে এখন থেকে এই মামলা পরিচালনা ও তদন্ত করবে দুদক।

এদিকে ১০ মে, রবিবার সকালে দুদকের পরামর্শে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে অভিযুক্তকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহিনুজ্জমান। এ বিষয়ে দুদক (চট্টগ্রাম অফিস) মামলা করবেন বলেও জানান তিনি।

Advertisement

৮ মে, শনিবার সন্ধ্যা ছয়টায় রেলওয়ের দুই কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় পূর্বাঞ্চল রেলওয়ে পাহাড়তলী অর্থ হিসাব শাখার জুনিয়র কর্মকতার্ ফয়সাল মহবুবকে গ্রেফতার করে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবি)। ফয়সাল মাহবুব পাহাড়তলী এলাকার প্রেস কলোনি ভাড়া বাসায় থাকতেন। তিনি বাগেরহাট জেলার শরনখোলার রাজাপূর গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে। তার পিতা রেলওয়ের সাবেক কর্মকর্তা ছিলেন।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ইনটেগ্রেটেড বাজেট অ্যান্ড অ্যকাউন্টিং সিস্টেমের (আইবাস) কারণে অর্থ জালিয়াতির এই ঘটনাটি প্রকাশ পায়। গত ৭ মে বিভাগীয় সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশলী জাহেদ আরেফিন তন্ময় ঈদ বোনাসের দুইবার ট্রন্সমিটেড হওয়ার বিষয়টি ডেপুটি ফাইন্যান্সিয়াল এডভাইজার এবং প্রধান হিসাব কর্মকর্তার নজরে আনেন। অস্বাভাবিক মনে হওয়ায় প্রধান হিসাব কর্মকতার্ বিষয়টি উর্ধ্বতন কতৃর্পক্ষকে জানান। পরে ‘আইভাস’ সিস্টেম সম্পর্কে জ্ঞাত একজনকে এবিষয়ে খতিয়ে দেখার দায়িত্ব দেয়া হয়। তার মাধ্যমে বেশকিছু অসংগতিপূর্ণ ট্রানজেকশন চিহ্নিত করা হয়।

এতে দেখা যায়, প্রায় ১৫ জন ব্যক্তির নামে ভুয়া বিল দাখিল ও পাশের মাধ্যমে ‘আইবাস’ সিস্টেমে বিল পরিশোধ করা হয়। ওই টাকা নিয়মিত ৪টি ব্যাংক হিসেবে জমাও হয়। যার প্রতিটি হিসব নাম আসামী ফয়সাল মাহবুবের সাথে মিলে যায়। পরে বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে তাকে বাংলাদেশ রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) হেফাজতে সোপর্দ করা হয়। ১ সেপ্টেম্বর ২০২০ থেকে ৬ মে ২০২১ পর্যন্ত দুই কোটি টাকা আত্মসাৎ করে তিনি নিজ ব্যাংক হিসাবে জামা করার তথ্য পাওয়ায় টাকা উদ্ধারে অভিযুক্ত কর্মকর্তার চারটি ব্যাংক একাউন্ট জব্দ করা হয়।

এ ঘটনায় ইতোমধ্যে দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। রোববার (৯ মে) এই কমিটি গঠন করা হয় বলে জানান বাংলাদেশ রেলওয়ে পূবার্ঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন । আগামী তিন কার্য দিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান রেলওয়ের এই সিনিয়র কর্মকতার্।রেলওয়েতে ‘আইভাস’ সিস্টেম চালু হওয়ার পর অর্থ ও হিসাব শাখা প্রথমে অফিসারদের বেতনভাতা পরিশোধের কার্যক্রম ইএফটির আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু করেন। পর্যায়ক্রমে এর আওতায় কর্মচারীদের অন্তর্ভুক্ত করার কাজ চলছে।

এদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত ফয়সাল দুই কোটি টাকা আত্মসাতের বিষয়টি স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছেন খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্ (ওসি) মোহাম্মদ শাহিনুজ্জামান। রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের এডিএও মোহাম্মদ হোবাইব অভিযোগের প্রেক্ষিতে আসামিকে রবিবার রাত ৮টায় খুলশী থানায় আনা হয়। পরে দুদকের পরামর্শে আজ সকালে (১০ মে) আসামী ফয়সাল মাহবুবকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকতার্।

দুদকের উপ-পরিচালক লুৎফর কবির চন্দন বলেন, ‘রেলওয়ে কর্মকর্তা ফয়সাল মহবুবের বিষয়টি নিয়ে ঢাকা অফিসের সাথে কথা বলেছি। আজ মঙ্গলবার তার বিরুদ্ধে মামলার বিষয়ে নির্দেশনা আসবে। আগামীকাল বুধবার ১২ মে, দুদকের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হবে।

উল্লেখ্য, গত ২০১২ সালে জুনিয়র হিসাব কর্মকর্তা হিসেবে পাহাড়তলী অর্থ ও হিসাব শাখায় যোগদান করেন ফয়সাল মাহমুদ।

জেইউএস/এসএম

Advertisement